আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২১:১৮

৯৫ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৮১টিতেই নেই বাংলা বিভাগ

অনলাইন ডেস্ক
৯৫ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৮১টিতেই নেই বাংলা বিভাগ

দেশের ৯৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৮১টিতে নেই বাংলা বিভাগ। যে ১৪টিতে বাংলা বিভাগ আছে, সেখানে আবার শিক্ষার্থী-খরা। বৃত্তি ঘোষণা করেও এই বিভাগে শিক্ষার্থী পাচ্ছে না তারা। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

দেশের মানুষের মাতৃভাষা বাংলা হলেও দেশটির বেশির ভাগ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা হিসেবে বাংলা পড়ার কোনো সুযোগ নেই। কারণ সেখানে বাংলার জন্য নেই কোনো বিভাগ। এর কারণ হিসাবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের আগ্রহের অভাবকে দায়ী করছে।

ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটিভের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ইফাত কায়েস চৌধুরী বলেন, বৃত্তি ঘোষণার পরও তাদের এই বিভাগে কোনো আগ্রহ দেখাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা।

দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে তারাই প্রথম তিন-চার বছর আগে বাংলা বিভাগ খোলেন জানিয়ে অধ্যাপক ইফাত কায়েস বলেন, ‘প্রথম বছর থেকেই আমরা প্রথম ভর্তি হওয়া পাঁচজনের জন্য বৃত্তি ঘোষণা করেছিলাম। কিন্তু স্নাতকোত্তর পর্যায়ে কয়েকজন ছাত্র পেলেও স্নাতক পর্যায়ে একজন শিক্ষার্থীও পাইনি। আমাদের শিক্ষক আছে, ক্লাস আছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত স্নাতক পর্যায়ে একজন শিক্ষার্থীও ভর্তি হয়নি।’

এর কারণ হিসেবে তিনি মনে করেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটি ধারণা আছে যে বাংলায় পড়ে ভালো চাকরি পাওয়া যাবে না। অথচ আমরা আমাদের নিজেদের স্কুল বা কলেজেই বাংলার জন্য ভালো শিক্ষক খুঁজে পাচ্ছি না।

বাংলা বিভাগ রয়েছে এ রকম আরো বিশ্ববিদ্যালয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে সেখানেও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে কিছু কর্মজীবী শিক্ষার্থী থাকলেও স্নাতক পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা একেবারেই হাতে গোনা। বাংলায় উচ্চশিক্ষা নিয়েছেন এ রকম একজন ঢাকার মিরপুরের বাসিন্দা সোহানা ইয়াসমিন।

তিনি বলেন, 'আমি বাংলায় অনার্স-মাস্টার্স করে দেখলাম স্কুল-কলেজ আর সরকারি চাকরিতে এর চাহিদা কম। বিসিএসের চেষ্টাও করেছি। কিন্তু সেটি না হওয়ায় পরে ম্যানেজমেন্ট আর ইংরেজির ওপর কয়েকটা শর্টকোর্স করে এখন গার্মেন্ট সেক্টরে কাজ করছি।'

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে বাংলার প্রতি এই অনাগ্রহের বিষয়ে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য মো. আখতার হোসেন বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আদলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ওই সংস্কৃতি এখনো হয়নি। এগুলো যেমন বাংলাদেশের শিক্ষায় অনেক অবদান রাখছে, তেমনি আবার তারা এমন সব বিষয়ে বিভাগ খুলতে চায়, যেগুলোতে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বেশি। তবে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় প্রোগ্রাম হিসাবে বাংলা খুলেছে। পুরোপুরি বিভাগ হিসাবে খুলতে হয়তো আরো খানিকটা সময় লাগবে।

তবে পুরোপুরি বিভাগ খুলতে বাধ্য করতে না চাইলে অন্তত একটি কোর্স হিসাবে বাংলাকে ছড়িয়ে দিতে চায় মঞ্জুরি কমিশন।

এ জন্য বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে তারা একটি কোর্স তৈরি করেছেন, যা সব বিশ্ববিদ্যালয়ে সব বিভাগেই পড়ানো হবে। এ বছর থেকেই এই কোর্সটি পুরোদমে চালু হওেয়ার আশা করা হচ্ছে। কমিশনের আশা, এর মাধ্যমে অন্তত সব বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছে বাংলাকে পৌঁছে দেয়া যাবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে