আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১০:৫৩

প্রধান শিক্ষকের এমপিও স্থগিত হতে পারে

বিডিটাইমস ডেস্ক
প্রধান শিক্ষকের এমপিও স্থগিত হতে পারে

গত বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি নিয়েছে—এমন এক হাজারের বেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে কারণ দর্শানো নোটিশ (শোকজ) পাঠাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ মঙ্গলবার থেকে নোটিশ পাঠানো শুরু হওয়ার কথা। এতে সন্তোষজনক জবাব দিতে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের এমপিও স্থগিত হতে পারে। ভেঙে দেওয়া হতে পারে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটিও।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সালমা জাহানের সই করা এক চিঠিতে ১০টি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে শোকজ প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু এরপর কয়েক দিন কর্মদিবস না থাকায় বোর্ডগুলো এ নির্দেশনা হাতে পায় গতকাল সোমবার। সেই হিসাবে আজ মঙ্গলবার থেকে এই শোকজ দেওয়া শুরু করবে শিক্ষা বোর্ডগুলো।

২০১৫ সালে সারা এসএসসির ফরম পূরণে বাড়তি অর্থ আদায়কারী তিন হাজার ১৪০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা করা হয়। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে গত ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে বোর্ডগুলোকে নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু বোর্ড তিন ধরনের স্কুলের সন্ধান পায়। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান জানায়, তারা অতিরিক্ত অর্থ ফেরত দিয়েছে। আবার অনেক প্রতিষ্ঠান দাবি করে, তারা অতিরিক্ত অর্থ নেয়নি। আর হাজারখানেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট বোর্ডের সঙ্গে কোনো যোগাযোগই করেনি। এই তালিকায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের স্কুলই বেশি।

শোকজ দেওয়ার নির্দেশনা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয় গতকাল। সেখানে বলা আছে, যেসব প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত অর্থ আদায় করেছে, সেগুলো বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা-২০০৯-এর ৩৬ অনুচ্ছেদ লঙ্ঘন করেছে। তাই সেসব প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি কেন ভেঙে দেওয়া হবে না—তা মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবু বক্কর ছিদ্দিক বলেন, ‘অতিরিক্ত টাকা আদায় করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কোনো ছাড় পাবে না। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা শোকজ পাঠাব। এরপর স্কুলগুলোর পাঠানো জবাব মন্ত্রণালয়ে দেওয়া হবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ই ব্যবস্থা নেবে। স্কুলগুলো জবাব দিতে কত দিন সময় পাবে, তা মঙ্গলবার চূড়ান্ত হবে।

উপরে