আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২২:৪০

বেরোবিতে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংর্ঘষে আহত ১০

বিডিটাইমস ডেস্ক
বেরোবিতে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংর্ঘষে আহত ১০

ডাইনিং রুমে খাবার নিয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংর্ঘষে ১০ জন আহত হয়েছে। শনিবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ কম পক্ষে ২০ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও  শহীদ মখিতার এলাহী হল ব্যাপক ভাংচুর করা হয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানাগেছে, শনিবার দুপুরে খাবার নিয়ে ডাইনিং রুমে বোরোবি ছাত্র লীগের যুগ্ম সম্পাদক রাসেলের সাথে শুভ নামে ছাত্রলীগের আরেক নেতার কথা কাটাকাটি হয়। এনিয়ে দুজনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। বিষয়টি ক্যাম্পাসে জানাজানি হলে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের দুই পক্ষের মধ্যে লাঠিসোটা ধারালো অস্ত্রসহ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। প্রায় ২ ঘন্টা ব্যাপি এই ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংর্ঘষ চলে।  এই এতে রাসেলসহ দুই পক্ষের ১০ জন আহত হয়। আহত রাসেলকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  পরে পুলিশ কম পক্ষে ২০ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন আনে।

বেরোবি’র ভিসি অধ্যাপক  ড. নুর উন নবী দু পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে জানান ঘটনাটি শোনার সাথে সাথে আমি হলের প্রোক্টর ও সহকারি প্রভোস্টকে বিষয়টি দেখার জন্য বলেছি এবং পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছি।

বেরোবি ক্যাম্পাস পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সফিকুল ইসলাম  দু পক্ষের সংঘর্ষের বিষয়টি স্বীকার করে জানান, প্রথমে ছাত্র লীগের দুই নেতার সাথে কথা কাটাকাটি ও হাতহাতির ঘটনা ঘটে। এর পর দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বেরেবি ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান শিশির জানান,  ক্যাম্পাসে যারা গন্ডোগোল করেছে তারা ছাত্রলীগের কেউ না। শিবিরের সাথে তারা যুক্ত। আমরা তাদের প্রতিহত করেছি।

বেরোবি ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক  মোস্তফা মাহামুদও ভাংচুর ও ছাত্র লীগের দু পক্ষের সংর্ঘষের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

 

 

উপরে