আপডেট : ১১ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৩:০৪

৩৭ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের কর্মবিরতি, সেশনজটের আশংকা

বিডিটাইমস ডেস্ক
৩৭ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের কর্মবিরতি, সেশনজটের আশংকা

সারাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালন করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

অর্থমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ ও বেতন বৈষম্য দুরীকরণের দাবিতে দেশের ৩৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতর কর্মবিরতি শুরু করেছেন শিক্ষকরা । সোমবার সকাল থেকে এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে। ক্লাস, পরীক্ষাসহ সব ধরনের কার্যক্রম থেকে বিরত রয়েছেন শিক্ষকরা। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের আহবানে এই কর্মবিরতি চলছে।

এদিকে শিক্ষার্থীদের অনুরোধে সেমিস্টার পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে ফেডারেশন। সেই অনুযায়ী সেমিস্টার পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি। তবে বাকি কোন কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছেন না শিক্ষকরা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কর্মবিরতি চলছে। ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। টিউটরিয়াল পরীক্ষাও নেয়া হয়নি। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাফরুহী সাত্তার বলেন, আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সকল প্রকার ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। সকল প্রকার কর্মকান্ড থেকেও আমরা দুরে থাকবো। এমনকি জরুরী কাজ ছাড়া প্রাশাসনিক কাজ থেকেও আমরা বিরত থাকবো।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সকাল থেকে বাস চালাচল করলেও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি দেখা যায়নি। শিক্ষকদের কর্মবিরতির কারণে তারাও ক্যাম্পাসে আসছেন না। কোন কর্মকাণ্ডই চলতে দেখা যায়নি। শিক্ষক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক আনোয়রুল ইসলাম বলেন, আমরা পুরোদমে কর্মবিরতিতে। কোন ধরনের শিক্ষা কার্যক্রমে আমরা অংশগ্রহণ করছি না।

এদিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ব থেকেই শীতকালীন ছুটি রয়েছে। আগামী ১৬ তারিখে ক্যাম্পাস খোলার কথা রয়েছে। তবে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা বলেন, যদি ১৫ তারিখের মধ্যেও দাবি আদায় না হয়, তাহলে ১৬ তারিখ আমাদের কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে।

এছাড়া, জগন্নাথ, রাজাশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব ক’টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মবিরতিতে রয়েছেন শিক্ষকরা।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে