আপডেট : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১৭:৪৬

‘নিয়ত করছি এমপিতে আসবো, এমপিতে আইছি’ (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক
‘নিয়ত করছি এমপিতে আসবো, এমপিতে আইছি’ (ভিডিও)

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন এ সময়ের আলোচিত মডেল-অভিনেতা হিরো আলম। এরপর সোমবার রাতে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের লাইভ টক শো ‘একাত্তর জার্নাল’ এ অংশ নেন তিনি। অনুষ্ঠানে হিরো আলম জানান, জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে তার মনে মনে থাকা এতদিনের গোপন ইচ্ছার কথা। উপস্থাপকের প্রশ্নবাণে জর্জরিত হয়েও শক্ত থাকেন নিজের অবস্থানে, প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মানুষের পাশে থাকার, উন্নয়নমূলক কাজে অংশ নেওয়ার।

মিথিলা ফারজানার উপস্থাপনায় ‘একাত্তর জার্নাল’ এ অতিথি হিসেবে অংশ নেন শিক্ষক, অর্থনীতিবিদ এমএম আকাশ, সাংবাদিক নাজমুল আশরাফ। অনুষ্ঠানে টেলি কনফারেন্সে যুক্ত হন হিরো আলম।

টক শো-তে হিরো আলমের কথোপকথন.........

উপস্থাপক ফারজানা মিথিলা: নমিনেশন পাওয়ার একটা সম্ভাবনা আছে সে কারণে কি মনোনয়ন নিলেন?

হিরো আলম: হ্যাঁ, নিজের মনের সাহস আছে আমি মনোনয়ন দিলে অবশ্যই পাবো, এই সাহসে আগিয়েছি, এই সাহসে আজকের পার্টিতে গিয়েছি এবং মনোনয়ন তুলেছি জনগণের ভালোবাসা, দোয়ায়।

উপস্থাপক: আপনি কি আগে থেকেই জাতীয় পার্টি করতেন?

হিরো আলম: আমি! না ছোটবেলা থেকে জাতীয় পার্টি করি নাই। আমি স্বতন্ত্রভাবে সব জায়গায় ভোট করেছি আর এবার আগে থেকে চিন্তা ভাবনা করেছিলাম মনে মনে এবার জাতীয় পার্টির নমিনেশনটা তুলবো। এজন্য মনে মনে জিনিসটা গোপন রাখছিলাম।

নাজমুল আশরাফ: আচ্ছা, আপনি তো এমনিতেই অনেক বিখ্যাত,আবার রাজনীতিতে আসলেন কোন উদ্দেশ্যে,কী করতে চান রাজনীতিতে এসে?

হিরো আলম: দেখুন, আগে আমি দুবার এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন করেছি।

উপস্থাপক: পাশ করেছিলেন দুবারই?

হিরো আলম: জ্বী না, একবার আমি ৭১ ভোটে ফেল করেছি, আরেকবার ১৬ ভোটে। ৬ জন প্রার্থী ছিল।

নাজমুল আশরাফ: রাজনীতিতে আসার উদ্দেশ্যটা কী?

হিরো আলম: রাজনীতিতে আসার উদ্দেশ্য ছোটবেলা থেকে যেহেতু একটু করে রাজনীতি বিষয়ে মনের মধ্যে ভাব হয়েছে, এলাকায় নির্বাচন করেছি। শুধু এলাকায় শুনতেছিল,এখন যেহেতু পুরো ওয়ার্ডের সবাই চিনে তাই সবাইকে বলেছিলাম আমি যদি এবার নির্বাচন করি তাহলে এমপি ভোটে নির্বাচন করবো। তাই সামনে নির্বাচনের জন্য ঘোষণা দিয়েছিলাম এবার আমি এমপি ভোটে দাঁড়াব। আর ঘোষণা দিয়ে নিজে নিজে গুছিয়ে নিয়ে সবার ভালোবাসা নিয়ে, মানুষের এলাকার প্রত্যাশা নিয়ে আরকি মনোবল জাগছে।

উপস্থাপক: আপনি কী জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী?

নাজমুল আশরাফ: জাতীয় পার্টি কেন আরো তো অনেক দল আছে?

হিরো আলম: জাতীয় পার্টিতে আসলাম এ কারণে আমি ছোটবেলা থেকে দেখেছি আরকি যখন জাতীয় পার্টি দেশের ক্ষমতা ছিল সকল ব্যবসাবাণিজ্য বলেন অন্যান্য বলেন এই কাজগুলো, আজকে দেখেন বড় বড় ব্যবসায়ী কত কষ্ট করে। যখন জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় ছিল ভালো ছিল। যখন জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় ছিল উন্নয়ন চতুর্দিকে আমরা তো দেখেছি।

নাজমুল আশরাফ: তখন তো আপনি অনেক ছোট, না?

হিরো আলম: হ্যাঁ, ছোট কিন্তু আমরা তো দেখেছি এগুলো।

উপস্থাপক: উনার ভালো লাগে জাতীয় পার্টি। আচ্ছা, আপনার সাথে ওইখানে আর কে কে আছে মানে বিএনপি? বগুড়া তো আসলে বিএনপির এলাকা, তো ওইখানে বিএনপির কে আছে?

হিরো আলম: বিএনপির আসলে ওই আসনে এখনো পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি।

উপস্থাপক: কে ছিল বিএনপির এমপি ওইখানে?

হিরো আলম: এখানে এখন জাতীয় পার্টি থেকে দুজন মনোনয়ন জমা দিয়েছে।

উপস্থাপক: না না আপনি যে আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বগুড়া-৪ আসন, ওইখানে কে আছে?

হিরো আলম: এখন এখানে আওয়ামী লীগের থেকে মনতাজ সাহেব আছে।

উপস্থাপক: বিএনপি যখন নির্বাচন করছিল ২০০৮ তখন কে এমপি ছিল?

হিরো আলম: সরি

উপস্থাপক: ২০০৮ এ কে ছিল বিএনপি থেকে?

হিরো আলম: তখন বিএনপি ছিল...

উপস্থাপক: কে ছিল?

হিরো আলম: তোফাজ্জল হোসেন ছিল।

উপস্থাপক: উনি কি এবার নির্বাচন করবে?

হিরো আলম: এখন উনি ভেবেচিন্তে দেখছেন জমা দিবে কি দিবে না। এখন জিনিসটা আমি কালকে বুঝতে পারবো জমা দিবে কিনা। এখনো পর্যন্ত আজকে তিনি জমা দেননি।

উপস্থাপক: অহ্, আচ্ছা।

নাজমুল আশরাফ: আপনি কি এলাকায় লোকজনের সমর্থন পাওয়ার জন্য জনসংযোগ করছেন মানুষের কাছে?

হিরো আলম: হ্যাঁ, অবশ্যই আমি সবার সাথে যদি জনসমর্থন না করি আর সবাই আশাবাদ না দেয় তাইলে কিন্তু এত বড় ঝুঁকি কিন্তু আমি নিতাম না। আমি আগে ছোটখাটো ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন করেছি চাইলে ভোট দিতে গেলাম আর হয়ে গেলাম। জনগণের ভালোবাসায় আর এলাকাবাসীর জনসমর্থনের উপরেই কিন্তু এত বড় ঝুঁকি নিয়েছি।

নাজমুল আশরাফ: আপনি কী অঙ্গীকার বা প্রতিশ্রুতি দিতে চান আপনার এলাকার মানুষকে কী করবেন আপনি এমপি নির্বাচিত হয়ে গেলে?

হিরো আলম: দেখুন, ছোটবেলা থেকে অলটাইম সমাজসেবা কাজগুলো আমার ভাল লাগে আরকি। আর জনগণের কারণে আজকে আমি জিরো থেকে হিরো আর আপনার এই হিরোটা শুধু আপনাদের ভালোবাসার কারণে। আর আমি আশা করি যে আমি যেহেতু জনগণের ভালোবাসা নিয়ে এতেদূর এসেছি এই ভালোবাসা অলটাইম তাদের পিছে ধরে রাখতে পারি, অলটাইম তাদের কাছে থাকাটা মূল উদ্দেশ্য।

নাজমুল আশরাফ: আচ্ছা, আপনি যদি এমপি হয়ে যান তারপরেও কি আমরা আপনার যেসব ভিডিও দেখি গানটান ইত্যাদি দেখি এগুলো করবেন?

হিরো আলম: অবশ্যই, কেন না! আমাদের এ যাবৎ যারা চলচ্চিত্রের যারা ভোট করেছে পাশ করেছে তারা এমপির পরেও কিন্তু তারা মাঠে এখনো আমাদের জন্য নাটক গান সবই করতেছে। অবশ্যই আমি এই ধারাটা ধরে রাখবো তাদের ভালোবাসা যেহেতু আছে।

মানুষ কিন্তু ছোট থেকে ফট করে বড় হয়ে গেলে মানুষ কিন্তু ব্যাকগ্রাউন্ড ভুলে যায়, আমি তো এটা ভুলে যাইতে চাইছি না।

নাজমুল আশরাফ: আপনি যার সাথে নির্বাচন করছেন হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ, তার সাথে আপনার দেখা হইছে?

হিরো আলম: হ্যাঁ, দেখা হয়েছে।

নাজমুল আশরাফ: কী বলেছেন উনি?

হিরো আলম: উনি আরকি সাহস দিয়েছেন। আমি চিন্তা করি উনার যেই জনপ্রিয়তাটা আছে আমি যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছি।

নাজমুল আশরাফ: ওইটা তো রংপুরে, বগুড়ায় না..

হিরো আলম: বগুড়ায় না কিন্তু জাতীয় পার্টি তো।

নাজমুল আশরাফ: আচ্ছা।

হিরো আলম: দল তো আমাদের। এ হিসেবে জনপ্রিয়তা এক যখন হয়, আজকে আমি তাদের দল থেকে উনি যদি পার্টি থেকে আমাকে নমিনেশন দেন আমি মনে হয় তার মুখটা রাখতে পারবো।

নাজমুল আশরাফ: এরশাদ সাহেবের জনপ্রিয়তা আর আপনার জনপ্রিয়তা মিলে আপনি পাশ করবেন আশা করি?

হিরো আলম: ইয়েস

উপস্থাপক: আচ্ছা, সর্বশেষ প্রশ্ন... আপনার দল যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে বিশেষ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেওয়ার ইচ্ছা আছে?

হিরো আলম: এখন সব দল চায় উন্নয়নমূলক কাজ করতে। দল ক্ষমতায় আসলে অবশ্যই উন্নয়নমূলক কাজের পেছনে থাকবো।

উপস্থাপক: না, কোন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছা আছে?

হিরো আলম: এখন আমি ছোট থেকে স্বপ্ন দেখছি আমি ইউনিয়ন পরিষদের যাব। ইউনিয়ন পরিষদের থেইকা গেছে। এরপরে নিয়ত করছি এমপিতে আসবো, এমপিতে আইছি। এর পরের হিসাবটা পরে করবো আগে এই ধাপটা পার করতে পারি কিনা এর পরের হিসাব পরে দেখবো।

উপস্থাপক: অনেক ধন্যবাদ জনাব হিরো আলম। আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি আমরা আপনার এই নতুন পদক্ষেপের জন্য। আপনার সাফল্য কামনা করছি। ধন্যবাদ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে