আপডেট : ৫ জুলাই, ২০১৮ ১৯:১১

‘শৈশব থেকে আমি ম্যারাডোনার ভক্ত’

অনলাইন ডেস্ক
‘শৈশব থেকে আমি ম্যারাডোনার ভক্ত’

আমি বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা নিয়ে অনেক বেশি উৎসাহী নই। কারণ, এটিতে বাংলাদেশ খেলে না। তবে আমার খেলা দেখা হয় নিয়মিত। ছোটবেলা থেকেই বিশ্বকাপ খেলা দেখি। এবারের বিশ্বকাপ আমার অনেক ভালো লাগছে। আমাদের প্রত্যাশিত দলের বাইরেরগুলোও অনেক ভালো খেলছে।

আমি মনে করি এটিই এবারের খেলার সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে। এদিকে প্রত্যাশিত দলগুলোও ভালো খেলেই হারছে। শৈশব থেকে আমি ম্যারাডোনার ভক্ত। সেই দিক থেকে আমি আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করি। কিন্তু এরমধ্যে আর্জেন্টিনাও বিদায় নিয়েছে। এখন ফ্রান্সকে সমর্থন করছি। হয়তো এবারের বিশ্বকাপ ফ্রান্সের থাকবে। 

তবে ব্রাজিলেরও সম্ভাবনা রয়েছে। খেলা মানে বিনোদন। এটিকে বিনোদনের মধ্যেই রাখতে হবে। কিন্তু বিশ্বকাপ নিয়ে আমাদের কেউ কেউ অতি উৎসাহী হয়ে আছেন। ফেসবুকের বন্ধুর তালিকা থেকে বাদ দেয়া, জমি বিক্রি করে অন্য দেশের পতাকা বানানো কিংবা বিল্ডিংয়ের রং করে অন্য দেশের পতাকা আর্ট করা এগুলোকে আমি বাড়াবাড়ি মনে করি। 

এছাড়া আত্মহত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে বলে শুনেছি। অথচ আমাদের স্বাধীনতা দিবস কিংবা বিজয় দিবসে সবার ঘরে ঘরে কিংবা বাড়িতে আমাদের এত বেশি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে দেখি না। একেকটি বিল্ডিংয়ে ৮-১০টি পতাকাও দেখেছি আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলের। 

এসব বিল্ডিংয়ে আমাদের জাতীয় দিবসে দু-একটির বেশি জাতীয় পতাকা দেখা যায় না। সত্যি এটি আমাদের জন্য দুঃখজনক একটি বিষয়। আমাদের আবেগকে কন্ট্রোল করা শিখতে হবে। অতি আবেগ কারো জন্য কাম্য নয়। আমাদের দিনকে দিন কমেডি হয়ে গেলে চলবে না। অন্য দেশের চেয়ে নিজের দেশকেই বেশি ভালোবাসতে হবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে