আপডেট : ১৮ মার্চ, ২০১৮ ১৩:০৩

তারকারা কোথায় কীভাবে ফাইনাল দেখবেন?

অনলাইন ডেস্ক
তারকারা কোথায় কীভাবে ফাইনাল দেখবেন?

উত্তেজনায় যদি হাত-পাই না কাঁপল, তবে সে জয়ের মূল্য কী! সেই উত্তেজনা নিয়ে বাংলাদেশ এখন নিদাহাস টি-২০ ট্রফির ফাইনালে। মহারণে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। শোবিজ অঙ্গনের অনেকেই আছে ক্রিকেটের ফ্যান- ফলোয়ার। আগামীকাল (ফাইনাল) ম্যাচ তাই মিস করতে চাচ্ছেন না কেউই। সে খবর জানানো হলো। কার প্রস্তুতি কেমন? কে কোথায় খেলা দেখবেন?

আবুল হায়াত: শুটিং আছে আগামীকাল(ফাইনাল খেলার দিন)। সেখানেই খেলা দেখবো। আশা করা যায় শুটিং স্পটে খেলা দেখার কোন ব্যবস্থা করে দিবে। এই উত্তরাতেই শুটিং হাউজে। আর অনলাইনে তো দেখা যায়। ওরা যে যেন সিস্টেম করে দিলো আইফ্লিক্সে খেলা দেখা যায় ক্লিয়ার। কিছুদিন ধরে ওটাই ব্যবহার করছি। সবসময় তো দেখা হয় না। মাঝেমধ্যে ঢুকে দেখার চেষ্টা করি। কাল কোন একভাবে খেলা দেখবো। আজ বলতে পারছি না। তবে টিভিতে দেখলে শান্তি মতো দেখা যেত। আমাদের দেশে তো নেটের অবস্থা এখনো অত ভালো না। তারপরও টিভি না মিললে মোবাইলে আইফ্লিক্সে।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী: আমাদের একটা টিম আছে। সাধারনত যারা একসঙ্গে খেলা দেখে থাকি। এখনো প্ল্যানিং করিনি কি করবো। কাল টুকটাক কাজ ছিল। সেটা আপাতত বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে আছি। আর আমাদের দলে আরও কয়েকজন কমরেড আছে। যেমন আবু শাহেদ ইমন, অমিতাভরা থাকে এই দলে। বাংলাদেশ ভালো খেললে অমিতাভ প্রচুর লাফালাফি করে। আর খারাপ খেললে চুল ছেড়ে। এই টেনশন মনে হয় ও সিনেমা বানানোর সময়ও নেয়নি।

মম: আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়া আছি। সেখানেই খেলা দেখব। শুটিং বন্ধ না থাকলেও মনোযোগ দিয়ে খেলা দেখা সম্ভব হবে। গত ম্যাচ দেখেছিলাম আমি, শিহাব শাহিন, সাজু খাদেম সহ আরও অনেকে। এ ম্যাচও আমরা একসঙ্গে দেখবো। আমাদের একটা প্যানেল আছে যারা ঢাকায় থাকলেও একসঙ্গে সবাই খেলা দেখি আড্ডা দেই। সেই প্যানেলটাই এখন শুটিয়ে ঢাকার বাইরে আছি। আশা করা যায় মজা হবে।

ইরেশ যাকের: অফিস থেকে তাড়াতাড়ি বাসায় আসবো। আব্বা, আম্মা, বউ সবাই মিলে খেলা দেখার প্ল্যানিং। আব্বাও খেলার পাগল। ওয়ার্ল্ড কাপের ফাইনালে উঠলে উত্তেজনা এর চেয়ে বেশি হত তা বলবো না। খেলা যে জাতীয় একটা বিষয় তা বাংলাদেশ বারবার প্রমাণ করে। বাংলাদেশ দল যেখানেই থাকুক, যেভাবেই থাকুক। আমরা সঙ্গে আছি।

মাহিয়া মাহি: অনলাইনে জানালেন,‘আমি এখন নেপালে আছি। গত ম্যাচটা দেখতে পারিনি শুটিং ছিল বলে। কিন্তু ইন্টারনেটে আপডেট সবসময়ই দেখেছি। আর হাইলাইটস পরে দেখলাম। ফাইনাল দেখার ইচ্ছে আছে। এখানকার কোন টেলিভিশনে দেখা যাবে সেটাও ঠিক জানি না। কিছু একটা ব্যবস্থা তো করতে হবে। চ্যানেলে না দেখতে পারলে অনলাইনে দেখবো বলে ভেবে রেখেছি। আমার অনেক ফ্রেন্ড আছে যারা খেলার খুব ভক্ত। ওদের বলে রেখেছি। ওরাই এগুলো আমাকে দেশ থেকে ম্যানেজ করে দিবে।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে