আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১০:০১

‘শাকিব আগেই বলেছিলো, সন্তান হলেই আমাকে ডিভোর্স দেবে’

অনলাইন ডেস্ক
‘শাকিব আগেই বলেছিলো, সন্তান হলেই আমাকে ডিভোর্স দেবে’

‘শাকিব খান আগেই আমাকে বলেছিলো, আমাদের সন্তান হলেই সে আমাকে ডিভোর্স দিয়ে দেবে। তখন আমি বিষয়টিকে গুরুত্ব দেইনি। কথার কথা মনে করেছিলাম।  কিন্তু আজ বুঝতে পারছি বিষয়টা কতটা সত্যি। ওর চরিত্র নিয়ে আর কিছু বলতে চাচ্ছি না। ভেবেছিলাম সেন্তান হলে ও শুধরে যাবে। কিন্তু ও কখনোই শুধরাবে না।’

বলছিলেন বাংলা সিনেমার আলোচিত নায়িকা অপু বিশ্বাস। শাকিব খানের সঙ্গে মতামতের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এসব কথা বলেন। 

অপু বিশ্বাস বলেন,‘ আমি ডিভোর্সের বিষয়টি মেনে নিয়েছি। পারবারিক ব্যাপারগুলো জনসম্মুখে আনা ঠিক নয়। শাকিবই জনসম্মুখে নিয়ে এসেছেন। কখনো চিন্তা করেনি, ,তার একটি সন্তান আছে। ভবিষ্যতে এর প্রভাব কী পড়বে তার উপর! তিনি নিজেকে ইতিবাচক দেখানোর জন্য সব সময় জনসম্মুখে বিষয়গুলো নিয়ে আসছেন। আর আমি আমার বচ্চার মুখের দিকে তাকিয়ে সব সময় চেয়েছি বিষয়গুলো বাইরের মানুষ কম জানুক।’

আপনার কাছে কী বিয়ের সকল কাগজপত্র আছে? কাবিননামা নিয়ে যেসব জটিলতা আছে, তার কোন সমাধান? আদৌ বিয়ের সময় আমার কাবিন আইন অনুযায়ী শাকিব করেছে কিনা আমি জানি না। কাবিনের কাগজে টাকার অঙ্কটা বড় ছিল। সেই কাগজ শাকিবের কাছে আছে। আমার কাছ থেকে কাগজটা ওরা ছিনিয়ে নিয়েছে। আমি মুসলমান ধর্মের বিয়ের রীতি পুরোপুরি জানতাম না। ফলে শাকিব যেভাবে বলেছে আমি তাই করেছি। তবে আমি দেখেছি, কাবিনের কাগজে এক কোটি সাত লাখ টাকার দেনমোহরের কথা লেখা ছিলো। এখন শাকিব বলছে, সাত লাখ টাকার নাকি দেনমোহর করা হয়েছে। এক কোটি টাকা কোথায় হাওয়া হয়ে গেল আমি জানি না। যেহেতু আমার কাছে কাগজপত্র নেই ফলে আমি কিছু প্রমাণ করতে পারব না।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে