আপডেট : ১৭ মার্চ, ২০১৬ ২১:২৫

ফেসবুক থেকে অভিনয়ে নীলাঞ্জনা!

বিনোদন ডেস্ক
ফেসবুক থেকে অভিনয়ে নীলাঞ্জনা!

মেয়েটির নাম নীলাঞ্জনা। রক্ষণশীল হিন্দু পরিবারের মেয়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছে। সহপাঠী এক মুসলমান বন্ধুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একসময় তাদের প্রেমের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায় কিছু বিশ্বাস। সেই বিশ্বাস থেকে যখন সরে আসার সুযোগ হয়, তখনই ছেলেটির ধরা পড়ে ক্যানসার। 

গল্পটি রফিক সিকদার পরিচালিত ভোলা তো যায় না তারে ছবির। গল্পের এই ‘নীলাঞ্জনা’ তানহা তাসনিয়া আর ছেলেটি নিরব।

১৮ মার্চ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। আর এই ছবির মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় অভিষেক হবে তানহার। এখন নির্ঘুম রাত কাটছে তাঁর। একদিকে যেমন তাঁর আনন্দ হচ্ছে, আবার মনে আছে শঙ্কা।  

মনে আনন্দ কিংবা শঙ্কা যা-ই থাকুক, ছবিটি নিয়ে কিন্তু তানহার প্রত্যাশা একটু বেশি। তাঁর মতে, ছবির গল্প গতানুগতিক না। দর্শকের ভালো লাগবে ছবিটি।

নতুন নতুন অভিজ্ঞতা নিয়ে তানহা বললেন, প্রথম দিন শুটিং করেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলে। একদিকে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো, অন্যদিকে আবার ছেলেদের হলে শুটিং। বুঝতেই পারছেন মানসিক চাপ কোন পর্যায়ে ছিল!

বড় পর্দায় অভিনয়ের সুযোগ পাওয়া প্রসঙ্গে তানহা জানান, একেবারে হুট করেই সুযোগ পেয়ে যাই। নিরব আমার ফেসবুকের বন্ধু। ফেসবুক থেকে ছবি দেখে নিরব আর ছবির পরিচালক আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তাঁরা আমাকে ভোলা তো যায় না তারে ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। সব শুনে আমি কী বলব, ভেবে পাইনি। কিন্তু গল্প শুনে ভালো লাগার মাত্রা বাড়তে থাকে। তারপর রাজি হয়ে গেলাম।

শুটিংয়ের মাস দু-এক আগে থেকেই তানহার প্রস্তুতি শুরু হয়। ছবির চিত্রনাট্য সংগ্রহ করেন। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজে নিজে, আবার কখনো কখনো বাবাকে সহশিল্পী বানিয়ে অভিনয়ের অনুশীলন করেন।

দুই বোন আর এক ভাইয়ের সংসারে সবার বড় তানহা। সম্প্রতি নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ শেষ করেছেন তিনি। সামনে এমবিএতে ভর্তি হবেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে