আপডেট : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:০৩

বিনা কর্তনে পাশ ‘মুসাফির’, ফাঁকা আওয়াজ নির্মাতার

বিনোদন ডেস্ক
বিনা কর্তনে পাশ ‘মুসাফির’, ফাঁকা আওয়াজ নির্মাতার

‘বিনা কর্তনে ছবি পাশ’ হলে কি সিনেমা হলে দর্শক বাড়ে? নাকি প্রশংসা জোটে নির্মাতার কপালে? প্রয়োজন মনে করলে সেন্সর বোর্ড ভালো ছবি থেকেও দৃশ্য কর্তন করতে পারে। আবার অতি নিম্নমানের ছবিকেও বিনা কর্তনে ছেড়ে দিতে পারে।

এই সহজ সত্যটি সম্ভবত চলচ্চিত্র নির্মাতাদের বোধগম্য হচ্ছে না। আর তাই নিজেদের ছবিকে ‘বিনা কর্তনে পাশ’ বলে ফাঁকা আওয়াজ দিচ্ছেন তারা। অনেক নির্মাতাই মনে করছেন, সেন্সর বোর্ড কাঁচি চালানো মানে নির্মাতার কৃতিত্ব ক্ষুন্ন হওয়া। এজন্যই কর্তনসাপেক্ষে ছবির সেন্সর সার্টিফিকেট পাওয়ার পর ‘বিনা কর্তনে পাশ’ বলে খবর রটাচ্ছেন।

গত ২৭ জানুয়ারি সেন্সর সার্টিফিকেট পায় আশিকুর রহমান পরিচালিত ‘মুসাফির’। ছবিতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ। ছবিটির সেন্সর সার্টিফিকেট পাওয়ার পর গণমাধ্যমে ‘বিনা কর্তনে পাশ’ হয়েছে বলে বিবৃতি দিয়েছেন পরিচালক আশিকুর রহমান। কিন্তু সেন্সর বোর্ডে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ভিন্ন তথ্য।

‘মুসাফির’ ছবিতে আইনসংক্রান্ত কিছু সংলাপ কর্তন করেছে সেন্সর বোর্ড। দৈর্ঘ্যে যা ১ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড। এই সংলাপ কর্তনসাপেক্ষেই ‘মুসাফির’ সেন্সর সার্টিফিকেট পেয়েছে। ফলে পরিচালকের ‘বিনা কর্তনে পাশে’র দাবি আর ধোপে টেকে না।

এই জাতীয় মনস্তাত্বিক সমস্যায় আরো অনেক নির্মাতাই এখন আক্রান্ত। সেন্সর বোর্ড কাঁচি চালালেও সে ঘটনা চেপে যান নির্মাতারা অজানা কারণে।

একটা সময় ছিল যখন ছবির সেন্সর সার্টিফিকেট হাতে পাওয়ার পর নির্মাতারা প্রশংসাসূচক চিঠি পেয়েছেন বলে দাবি করতেন। পরে দেখা যায়, সেন্সর বোর্ড এজাতীয় কোনো পত্র কোনো ছবিকেই প্রদান করে না। জানাজানি হওয়ার পর নির্মাতাদের ফাঁকা আওয়াজ দেয়া বন্ধ হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে