আপডেট : ১৮ মার্চ, ২০১৬ ১৬:২০

ভাত দিতে দেরি হওয়ায় কিশোরী নববধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

বিডিটাইমস ডেস্ক
ভাত দিতে দেরি হওয়ায় কিশোরী নববধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

ভাত দিতে দেরি হওয়ায় অজুহাতে মাহফুজা (১৬) নামের কিশোরী নববধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে। এসময় বালিকাবধূর যৌনাঙ্গে কলাগাছের থোড় ঢুকিয়ে দেয় পাষণ্ড স্বামী।

গত বুধবার মধ্যরাতে খুলনার পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালী গ্রামে এ নির্মম নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। পরে এলাকাবাসী ওই কিশোরীর স্বামী ময়নুদ্দীনকে (৩৩) গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

ঘটনার হোতা ময়নুদ্দীন পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালী গ্রামের ইনছার সরদারের ছেলে। নির্যাতনের শিকার তার কিশোরী বধূ মাহফুজা খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার জামিলা গ্রামের ছহিলউদ্দীনের মেয়ে।

এলাকাবাসী জানান, মাস খানেক আগে ময়নুদ্দীনের সঙ্গে বিয়ে হয় মাহফুজার। বিয়ের পর থেকেই ময়নুদ্দীন যৌতুকের জন্য প্রায়ই মাহফুজাকে মারধর করতো। এক পর্যায়ে বুধবার রাতে ভাত আনতে দেরি হওয়ার অজুহাতে রাত ১২ টার দিকে মাহফুজার হাত-পা ও মুখমণ্ডল বেঁধে ফেলে ময়নুদ্দীন। এরপর পাশের একটি বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে স্ত্রীর পরনের কাপড় খুলে ফেলে। পরে গামছা দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালায়।

এক পর্যায়ে স্ত্রীর যৌনাঙ্গে কলাগাছের থোড় ঢুকিয়ে দেয়। পরে কাঁচি দিয়ে শরীরে কোপ মারতে যাওয়ার সময় হঠাৎ স্ত্রীর মুখের বাঁধন খুলে যায়। এতে মাহফুজা চিৎকার দিয়ে উঠলে স্থানীয়রা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে ময়নুদ্দীনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

এলাকাবাসী মাহফুজাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আশরাফ হোসেন বলেন, আটক ময়নুদ্দীন পুলিশের কাছে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। যৌতুকের জন্য ময়নুদ্দীন আরো দুই স্ত্রীকে তাড়িয়ে দিয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে