আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৫ ২৩:২৭

যাবজ্জীবন কারাদন্ড হতে পারে ক্রিকেটার শাহাদাত'র!

বিডিটাইমস ডেস্ক
যাবজ্জীবন কারাদন্ড হতে পারে ক্রিকেটার শাহাদাত'র!

শুধুমাত্র তারকাখ্যাতি দিয়ে পার পাচ্ছেন না জাতীয় দলের ক্রিকেটার শাহাদাৎ হোসেন। নাবালিকা পরিচারিকাকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে তার বিরুদ্ধে। আর এ অভিযোগেই ১৪ বছরের সাজা হতে পারে শাহাদাত দম্পতির।

বাদি পক্ষের আইনজীবীরা জানান, ১১ বছর বয়সী গৃহকর্মী হ্যাপিকে পেটানোর দায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেনের পাশাপাশি একই শাস্থি হতে পারে তার স্ত্রী নিত্য শাহাদাতেরও।

পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে ৩৮ টেস্ট ও ৫১ ওয়ানডে খেলা এই ক্রিকেটার ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে তাদের ১৪ বছরের কারাবাস বরণ করতে হবে। যদিও সেটা নির্ভর করছে আদালতের সিদ্ধান্তের উপর।

তবে ‘প্রাথমিকভাবে, শাহাদাত ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ সেটা প্রমাণিত হয়েছে’ বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

এ অভিযোগেই ২৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারকে গত ১৩ সেপ্টেম্বর সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

যদিও বুধবার নিজেকে আবারো নির্দোষ দাবি করেন শাহাদাত। তার বিরুদ্ধে গৃহকর্মী হ্যাপিকে মারধোরের অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন তিনি।

গত অক্টোবরে গ্রেফতার হওয়ার পর এবারই প্রথম সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ পেলেন শাহাদাত। ক্যারিয়ারকে ধ্বংস করতেই তার বিরুদ্ধে এমন ষড়যন্ত্র করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

৫ অক্টোবর ১১ বছরের পরিচারিকা হ্যাপিকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে প্রথমবার তাকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তার বাড়ির কাছ থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল হ্যাপিকে। সাংবাদিকদের কাছে হ্যাপি জানিয়েছিল, তুচ্ছ কারণে তাকে প্রায়শই মারধর করতেন শাহাদত এবং তার স্ত্রী। নির্যাতনের জন্য ব্যবহার করা হতো লাঠি, ক্রিকেট ব্যাট এবং লো‌হার রড। ঘরে আটকে রাখা হতো। মাঝেমাঝেই খাবারও দেওয়া হতো না। এমনকি, রাতের ঘুমানোর জন্য জায়গা দেওয়া হত বাথরুমে। একবার মেরে হ্যাপির পা’ও ভেঙে দেওয়া হয়েছিল।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/পিএম

উপরে