আপডেট : ৩ জুন, ২০১৯ ১৪:৪০

আনন্দবাজারে তামিম-আয়েশার ‘লাভস্টোরি’

অনলাইন ডেস্ক
আনন্দবাজারে তামিম-আয়েশার ‘লাভস্টোরি’

বাংলাদেশ দলের তারকা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকার প্রেমকাহিনী সবারই জানা। এবার দেশের গন্ডি পেরিয়ে গেলো তাদের লাভস্টোরি। বিশ্বকাপ চলার প্রাক্কালে তাদের প্রেম উপখ্যান নিয়ে ফটো স্টোরি ছাপিয়েছে ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদপত্র আনন্দ বাজার।

চট্টগ্রামের আগ্রাবাদের সম্ভ্রান্ত ব্যবসায়ী পরিবারের মেয়ে আয়েশা সিদ্দিকা। এই তরুণীকে বলা হয় বাংলাদেশের অন্যতম ডাকসাইটে সুন্দরী। ভালোবেসে তিনি ঘর বেধেছেন বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ওপেনিং ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালের সঙ্গে।

মাত্র ১৫ বছর বয়সে আয়েশার প্রেমে পড়েছিলেন তামিম। এক বন্ধুর মাধ্যমেই প্রেমের প্রস্তাব দেন। উদীয়মান ক্রিকেটার তামিমকে প্রথমে পাত্তা দেননি আয়েশা। বয়সে ছোট ছিলেন, পরিবারের কেউ যদি কিছু বলে, তাই ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তামিমকে।

পরবর্তীতে অবশ্য তামিমের প্রস্তাবে সম্মতি দেন আয়েশা। চুটিয়ে প্রেম করার মতো খুব সময় ছিল না তাদের। দুই জনের মাঝে ছিল লম্বা দূরত্ব। আয়েশা ক্রিকেটের তেমন ভক্ত নন, তার পছন্দ ফুটবল।

মালয়েশিয়া থেকে পড়াশোনা করেছেন আয়েশা, ১৮ বছর বয়সে বড় বোনের সঙ্গে বাইরে যান পড়তে। বাইরে যাওয়ার সময় জাতীয় দলে সুযোগ পান তামিম। তামিমও যেতেন মালয়েশিয়ায়, আয়েশার সঙ্গে দেখা করতে।

মালয়েশিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন আয়েশা। ২০১৩ সালের জুন মাসে চট্টগ্রামে বিশাল অনুষ্ঠান করে বিয়ে করেন তামিম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের নামী তারকারা। ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াও।

আয়েশার সঙ্গে তামিমের বিয়ের পর তো বাংলাদেশে তামিমের প্রচুর অনুরাগী তাঁদের বাড়ির সামনেও এসে কান্নাকাটি করেছিল। তামিম বলেন, আয়েশার মতো স্ত্রী পেয়ে তিনি সত্যিই ভাগ্যবান।

আয়েশা কিন্তু তামিমকে ভালবেসেই ফুটবলের চেয়ে ক্রিকেটকে বেশি ভালবেসে ফেলেছেন। তামিম ও আয়েশার একটি পুত্রসন্তানও রয়েছে। তার নাম আরহাম ইকবাল খান।

আয়েশা বেশ কিছু সামাজিক কার্যক্রমে যুক্ত। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সক্রিয় তিনি। তার প্রায় এক লক্ষের কাছাকাছি ফলোয়ার রয়েছে। সন্তান ও মায়ের সম্পর্ক, সন্তানের প্রতি মায়ের দায়িত্ব, মাতৃত্ব নিয়ে বিভিন্ন আলোচনাসভা ও বিজ্ঞাপনেও অংশ নেন আয়েশা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে