আপডেট : ১২ নভেম্বর, ২০১৮ ১৭:২৭

৫৫ বছরের রেকর্ড ধরে রাখলেন মুশফিক!

অনলাইন ডেস্ক
৫৫ বছরের রেকর্ড ধরে রাখলেন মুশফিক!

বিশ্বের প্রথম উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দুটি ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড করেন মুশফিকুর রহিম। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে এটি একটি অনন্য রেকর্ড। আর এই রেকর্ড করার পাশাপাশি টানা ৫৫ বছরের ইতিহাসকে নষ্ট হতে দিলেন না মুশফিক।

১৯৬৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্যার নরাড হান্টের করা ১৮২ রানের ইনিংসটি ছিল সে বছরের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান। এরপর টানা ৫৫ বছরের ক্রিকেট ইতিহাসে কোনো না কোনো দেশের ব্যাটসম্যান ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন। মুশফিকের সেঞ্চুরির আগে ৫৫ বছরের টানা রেকর্ডটি ভেঙে যাওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছিল। কেননা চলতি বছরে এখন পর্যন্ত টেস্টে কেউ ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি। আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরিহীন বছর যাওয়ার শঙ্কা পুরোপুরি বন্ধ করে দিলেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯৫২, ১৯৬১ ও ১৯৬৩ এই তিনটি বছর বিশ্ব দেখেনি কোন ডাবল সেঞ্চুরি।

বিশ্বের প্রথম উইকেটকিপার- ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দুইবার দ্বিশতক করার কীর্তি গড়েছেন তিনি। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০১৩ সালে গলে কাঁটায় ২০০ রান করেন এ নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান। সেটিও ছিল দেশের টেস্ট ইতিহাসে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি।

টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি আছে কুমার সাঙ্গাকারা, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, মহেন্দ্র সিং ধোনিসহ সব কিংবদন্তি উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যাদের। তবে দুইবার করে নেয় কারও।

এদিন বাংলাদেশ ক্রিকেটেও অনন্য নজির গড়েছেন মুশফিক। দেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দুইবার ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানোর রেকর্ড গড়েছেন তিনি। টাইগারদের হয়ে ক্রিকেটের আদি ফরম্যাটে দ্বিশতক আছে কেবল দুজনের-সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের।

টিম বাংলাদেশের হয়ে ক্রিকেটের অভিজাত সংষ্করণে সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ছিল সাকিবের, ২১৭। ২০১৭ সালে ওয়েলিংটনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এ ইতিহাস গড়েন তিনি। আর ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনায় ২০৬ রানের অনিন্দ্যসুন্দর ইনিংস খেলেন তামিম। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ও ড্যাশিং ওপেনারকে ছাড়িয়ে গেছেন মুশফিক। এখন এ ফরম্যাটে টাইগারদের সর্বোচ্চ রান স্কোরার তিনিই।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে