আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৫:২৪

পাকিস্তানের চেয়ে বোলিংয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক
পাকিস্তানের চেয়ে বোলিংয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

এশিয়া কাপের অঘোষিত সেমিফাইনালকে সামনে রেখে আলোচনায় এসেছে বাংলাদেশ দলের বোলিং। যে ডিপার্টমেন্টে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। পুরো এশিয়া কাপেই বেশ বিবর্ণ পাকিস্তানের বোলিং লাইনআপ। শুধু তাই নয়, বোলিং বৈচিত্রও পাকিস্তানের চেয়ে এখন বেশি বাংলাদেশ দলের। পার্টটাইম স্পিনার মাহামুদুল্লাহ গত ম্যাচে দারুণ বল করে সেটাই জানিয়েছেন। বোলিং কম্বিনেশনে ৩ পেস বোলারের মুখস্ত আইডিয়া থেকে বেরিয়ে ২ পেস বোলার তত্ত্বে এসে সুফল পেয়েছে বাংলাদেশ দল।

পাকিস্তানের বোলাররা যেখানে গত ৪ ম্যাচে শিকার করেছে ১৬ উইকেট, সেখানে বাংলাদেশ বোলারদের শিকার সংখ্যা ২৫টি। পাকিস্তানের ৪ পেস বোলার চার ম্যাচে শিকার করেছেন ৮টি উইকেট। আর বাংলাদেশের ৪ পেস বোলার শিকার করেছেন ১২ উইকেট। এশিয়া কাপ মিশনে মাশরাফি আড়াইশ’ উইকেটের মাইলস্টোন ছুঁয়েছেন। সাকিব আছেন দারুন ফর্মে। এশিয়া কাপের চলমান আসরে ৭ উইকেট শিকার করেছেন ইতোমধ্যে। ডেথ ওভারের বোলিং পরীক্ষা দিয়েছেন রুবেল, মুস্তাফিজ। এক ম্যাচ খেলে দারুণ করেছেন আবু হায়দার রনি।

অন্যদিকে। এশিয়া কাপে বাঁহাতি পেস বোলার মোহাম্মদ আমিরকে বড়ই নির্বিষ দেখাচ্ছে। এশিয়া কাপের আগে জিম্বাবুয়ে সফর থেকে শুরু হয়েছে তার হতশ্রী দশা। টানা ৬ ম্যাচে উইকেটশূণ্য তিনি। আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আবিস্কার পেস বোলার হাসান আলীকেও সেভাবে চেনা যাচ্ছে না। এশিয়া কাপের চলমান আসরে ৩ উইকেট পেয়েছেন সর্বসাকূল্যে। তাও আবার উইকেট পিছু তার ৫১.৬৬ রান খরচ করে! উসমান খানের শিকার সংখ্যাও ৩টি। উইকেট প্রতি তার গড় রান ৩৪.৬৬। ডান হাতি পেস বোলার ফাহিম আশরাফের শিকার সেখানে ২ উইকেট। 

উপরে