আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:২৬

শ্রীলঙ্কায় গিয়েও লঙ্কাকাণ্ড বাঁধালেন হাথুরুসিংহে!

অনলাইন ডেস্ক
শ্রীলঙ্কায় গিয়েও লঙ্কাকাণ্ড বাঁধালেন হাথুরুসিংহে!

চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের অন্যতম সফল কোচ। তাঁর কোচিং নির্দেশনায় বাংলাদেশ বর্তমানে এশিয়ার অন্যতম সেরা দল হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছে। বাংলাদেশের অনেক সাফল্যের পেছনে তাঁর অবদান থাকলেও তাঁকে নিয়ে সমালোচনার শেষ ছিল না।

বাংলাদেশের কোচ থাকা অবস্থায় তাঁর বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় অভিযোগ ছিল, তিনি নিজের সিদ্ধান্ত জোর করে খেলোয়াড়দের ওপর চাপিয়ে দিতেন। সেই সঙ্গে দলের ব্যর্থতার দায় পুরোপুরি একজনের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার অভিযোগও ছিল তাঁর ওপর।

এবার শ্রীলঙ্কায় দায়িত্ব নেওয়ার পর একই ঝামেলা পাকাচ্ছেন হাথুরু। এশিয়া কাপের ব্যর্থতার পুরো দায় অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের ওপর পড়েছে। যার কারণে নেতৃত্ব ছাড়তে হয় ম্যাথিউজকে। এদিকে নেতৃত্ব কেন ছাড়তে হয়েছে ম্যাথিউজকে সেই বিষয় কিছুই জানায়নি লঙ্কান বোর্ড।

বাংলাদেশে থাকার সময় নির্বাচক কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন কোচ হাথুরু। শ্রীলঙ্কাতেও তাকে এই ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। আর হাথুরুর স্বভাব এমন- তিনি বাকি নির্বাচকদের তেমন পাত্তা দেন না, তার কথাই শেষ কথা। শ্রীলঙ্কাতে গিয়েও এই কাজটিই করছেন বাংলাদেশের সাবেক কোচ। ঝামেলা তাই লেগে গিয়েছে সেখানেও।

নেতৃত্ব হারানোর পর ম্যাথিউজ লঙ্কান বোর্ডকে যে চিঠি দিয়েছেন, তাতে বেরিয়ে এসেছে হাথুরুসিংহের প্রভাব খাটানোর তথ্য। ম্যাথিউজ মনে করছেন, তাকে `বলির পাঁঠা` বানিয়েছেন এই হাথুরু আর নির্বাচকরা।

ম্যাথিউজ চিঠিতে লিখেন, ‘গত ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার এসএলসিতে এক বৈঠকে নির্বাচকমণ্ডলী এবং জাতীয় দলের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা আমাকে শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়তে বলেন। তাৎক্ষণিকভাবে আমি বিস্মিত হয়েছি এবং আমার মনে হয়েছে, এশিয়া কাপে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কা দলের খারাপ পারফরম্যান্সের পুরো দায় আমার উপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমাকে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে। আমি দায় নিতে প্রস্তুত। তবে শুধু আমাকে দোষী বললে সেটি হবে বিশ্বাসঘাতকতা।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে