আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:১৬

বাংলাদেশের মুখোমুখি হতে ভয়ে কাঁপছে পাকিস্তান!

অনলাইন ডেস্ক
বাংলাদেশের মুখোমুখি হতে ভয়ে কাঁপছে পাকিস্তান!

আজকে শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারত-আফগানিস্তান। ভারত এরই মধ্যে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। তাই আজকের ম্যাচটি তাদের জন্য মর্যাদার লড়াই। আর আফগানিস্তানদের জন্য সান্তনার জয় হবে যদি তারা ম্যাচটি জিততে পারে।

চলমান এশিয়া কাপের সুপার ফোরের শেষ ম্যাচে বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫.৩০ মিনিটে খেলাটি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে ভারতের সাথে টানা দুই ম্যাচে হেরে ভয়ে কাঁপছে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতা পাকিস্তান। যদিও সুপার ফোরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ জিতেছে। আর সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচ হারলেও দ্বিতীয় ম্যাচটি জিতে ফাইনালের পথে একধাপ এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। তাই বুধবারের (২৬ সেপ্টেম্বর) সুপার ফোরের ম্যাচটি হবে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের জন্য অলিখিত সেমি-ফাইনাল। ফলে যারা জিতবে, তারাই ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে মুখোমুখি হবে।

এদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে বুধবারের (২৬ সেপ্টেম্বর) ম্যাচ নিয়ে ভয়ে কাঁপছে পাকিস্তান। বিষয়টি নিয়ে স্পষ্ট করলেন পাকিস্তানের দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ মিকি আর্থার।

কোচ বলেন, পাকিস্তান শিবিরে ভয় ঢুকে গেছে!পাকিস্তান কোচ মিকি আর্থার বলেন, ‘আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছে দল। এখন ভয় ঢুকে গেছে, সত্যি বলতে, এই মুহূর্তে খেলোয়াড়দের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের সঙ্কট চলছে। ব্যর্থতার ভয় কিছুটা হলেও ড্রেসিংরুমে গ্রাস করেছে। ক্রিকেট দল হিসেবে এখন আমরা কি অবস্থায় আছি, সেটা খুব ভালো করেই বুঝতে পারছি আমরা।’

২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ে পাকিস্তানের বড় নায়ক ছিলেন ওপেনার ফখর জামান এবং দুই পেসার মোহাম্মদ আমির ও হাসান আলি। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে অসাধারণ এক সেঞ্চুরি করা ফখর জামানের ব্যাট একেবারেই হাসেনি এশিয়া কাপে। এশিয়া কাপে এ পর্যন্ত খেলা তিন ম্যাচের দুটিতেই ‘ডাক’ মেরেছেন। অন্য ম্যাচটিতে করেছেন ৩১ রান। আর এই তিনজনেই খারাপ সময়ের ভেতর দিয়ে যাচ্ছেন।

তাইতো মিকি আর্থার উদাহরণ হিসেবে দাঁড় করিয়েছেন ফখর জামানকে। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেট আত্মবিশ্বাসের খেলা। অথচ ফখর জামানকে দেখুন। আমরা সবাই জানি ও কতটা অবিশ্বাস্য খেলোয়াড়। ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দেওয়া খেলোয়াড় সে। আমাদের প্রত্যাশা থাকে ও ভালো শুরু এনে দেবে দলকে। কিন্তু এই মুহূর্তে নিজের খেলা নিয়ে ওর মধ্যে যেন দ্বিধাদ্বন্দ্ব চলছে।’

এছাড়া ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘৯ উইকেটে হেরে যাওয়াটা পাকিস্তানের জঘন্য পারফরম্যান্সগুলোর একটি হয়ে থাকবে। তবে আমাদের তো এখানেই থেমে যাওয়ার উপায় নেই। এগিয়ে যেতে হবে। আশা করি দ্রুতই আমরা ঘুরে দাঁড়াব। এবং আরও ভালো এবং শক্তিশালী দল হিসেবে ফিরে আসব।’

আর আফগানিস্তানের বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয়ের পর বাংলাদেশ দলের আত্মবিশ্বাস এমনিতেই এখন টগবগে। টানা দুই হারে পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গিয়েছিল বাংলাদেশের। ফলে আফগানদের বিপক্ষে জয়ের পর শুধু আত্মবিশ্বাসই ফিরিয়ে আনেনি, দলের মধ্যে ‘আমরা পারব’ বিশ্বাসটাও বুনে দিয়েছে। আর এখানেই যত ভয় পাকিস্তানের।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে