আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:৪১

যে তরুণ টাইগারদের জন্য এশিয়া কাপ নতুন সুযোগ

অনলাইন ডেস্ক
যে তরুণ টাইগারদের জন্য এশিয়া কাপ নতুন সুযোগ

গত তিন আসরে দুইবার ফাইনালে উঠেও শিরোপার স্বাদ পায়নি টাইগাররা। সর্বশেষ আসরে নিজেদের মাঠে ভারতের কাছে হেরে শিরোপা বঞ্চিত হয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের এবারের লক্ষ্য শিরোপা জয়। তবে আগামীকাল মাঠে নামার পর বেশ কিছু খেলোয়াড়কে দিতে হবে পরীক্ষা। নিজেদের প্রমাণ করার সুযোগ হতে পারে এই এশিয়া কাপ।

আসুন দেখে নেই কাদের জন্য এশিয়া কাপ হতে পারে নিজেদের প্রমাণ করার মোক্ষম জায়গা।

লিটন কুমার দাস

দীর্ঘদিন বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন লিটন। যদিও বাংলাদেশের জার্সি গায়ে ৪ বছর ধরে খেললেও সুযোগ পেয়েছেন মাত্র ১২টি ইনিংসে। সুযোগটাও ধারাবাহিকভাবে আসেনি। ১২ ইনিংসে সর্বোচ্চ রান মাত্র ৩৬! গড় ১৫। এমন রেকর্ড নিয়েও এশিয়া কাপের মতো আসরে সুযোগ পেয়েছেন তামিমের সঙ্গী হিসেবে। সুযোগ পাওয়ার কারণ অবশ্য অন্যদের ব্যর্থতা। তামিমের সঙ্গী হিসেবে বর্তমান সময়ে বিবেচনা করা হয় ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয় ও সৌম্য সরকারকে। এই তিনজনের একজনও ফর্মে নেই। তাঁদের অফফর্মে ভাগ্য খুলেছে লিটনের। নিজেকে এই সিরিজেই প্রমাণ করতে হবে লিটনকে। এই সিরিজে ভালো পারফর্ম না করতে পারলে জিম্বাবুয়ে সিরিজে বাতিলের খাতায় নাম লেখাতে পারেন লিটন। 

এশিয়া কাপে ভালো পারফর্ম করে পেয়ে যেতে পারেন বিশ্বকাপের টিকেট। বাংলাদেশ এখন থেকেই বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে। সেটার জন্য এশিয়া কাপের পারফরমান্স অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা লিটন এই সিরিজে খারাপ খেললেই পরবর্তী সিরিজে বসে যেতে পারেন। এরপর তাঁকে আর বিবেচনা করা নাও হতে পারে।

মোহাম্মদ মিথুন

মোহাম্মদ মিথুন বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে আয়ারল্যান্ডে দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। এতেই আবারো কপাল খুলে যায় তাঁর। আয়ারল্যান্ড সফরের শেষ টি-টোয়েন্টিতে খেলেছিলেন ৩৯ বলে ৮০ রানের বিস্ফোরক ইনিংস। ওই ইনিংসের কারণেই মূলত সুযোগ পান আবারো জাতীয় দলে। মিথুন কিছুটা মারকুটে ব্যাটসম্যান। শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে নিষিদ্ধ হওয়া সাব্বিরের বিকল্পভাবা হচ্ছে তাঁকে। এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচ থেকেই তাঁকে দেখা যেতে পারে। খুব সম্ভবত সাব্বিরের ছয় নম্বর পজিশনেই খেলবেন তিনি। নিজেকে আবারো প্রমাণ করানোর জন্য এশিয়া কাপ তাঁর জন্য বড় সুযোগ। কেননা সাব্বির নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরলেই আবারো দলে সুযোগ পেয়ে যেতে পারেন। সাব্বির দলে সুযোগ পেলে মিথুনকে থাকতে হবে মাঠের বাইরে। সে জন্যই মিথুন এশিয়া কাপে ভালো পারফর্ম করলে টিকে যেতে পারেন দলের সঙ্গে। এছাড়া বিশ্বকাপের জন্য তাঁর নামটি বিবেচনায় উঠে আসবে।

মেহেদী হাসান মিরাজ

মিরাজকে ভাবা হচ্ছে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ ‘সাকিব আল হাসান’। সেই সঙ্গে বর্তমান সময়ে বোলিংয়ে সাকিবের যোগ্য স্পিন সঙ্গী। বাংলাদেশ দল থেকে আব্দুর রাজ্জাক উপেক্ষিত হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে রাজ্জাকের অভাবটা পূরণ করার জন্য। মিরাজ নিয়মিত একাদশে থাকলেও বাংলাদেশ যে যোগ্য সাকিবের স্পিন সঙ্গী পেয়েছে সেটাও বলা যাচ্ছে না। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে মিরাজ দারুণ খেলেছেন। সবচেয়ে বেশি প্রশংসিত হয়েছে তাঁর নিয়ন্ত্রিত বোলিং। উইকেট তিনটি পেলেও গেইলদের মতো বিগ হিটারদের সামনে বেশ সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছেন তিনি। এশিয়া কাপেও সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাইবেন তিনি। বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংয়েও তাঁকে ধারাবাহিকতায় আসতে হবে। কেননা তিনি নিজেও জানেন এশিয়া কাপে ভালো পারফর্ম করলে বিশ্বকাপ দরজা উন্মুক্ত হয়ে যেতে পারে তাঁর জন্য।

আরিফুল হক

বাংলাদেশ অনেকদিন ধরে একজন পেস বোলিং অল-রাউন্ডার খুঁজছে। সামনে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ড পেস বোলারদের জন্য স্বর্গ। পেস বান্ধব উইকেটে আরিফুলের সুযোগ থাকবে ভালো করার। তবে তাঁর আগে এশিয়া কাপে নিজেকে প্রমাণ করতে হবে। যদিও রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান ও মাশরাফি বিন মর্তুজার মতো খেলোয়াড়দের বাদ দিয়ে আরিফুলের দলে সুযোগ পাওয়াটা বেশ কষ্টসাধ্য। তবে সুযোগ পেলে যে নিজেকে প্রমাণ করতে চাইবেন সেটা না বললেও সহজেই অনুমান করা সম্ভব।

নাজমুল হোসেন শান্ত ও আবু হায়দার দুইজনই বাংলাদেশের হয়ে অভিষেকের অপেক্ষায় রয়েছেন। তাঁরাও সুযোগ পেলে নিজেদের প্রমাণ করার চেষ্টাটাই করবেন।  

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে