আপডেট : ২২ জুলাই, ২০১৮ ১৬:২৪

বাংলাদেশের বাজে পারফরমেন্স যেভাবে দেখছে ক্যারিবীয় মিডিয়া

অনলাইন ডেস্ক
বাংলাদেশের বাজে পারফরমেন্স যেভাবে দেখছে ক্যারিবীয় মিডিয়া

টেস্ট সিরিজের হতাশার পর আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে খেলতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। নতুন অধিনায়কের অধীনে ভিন্ন দল নিয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ভাল করতে চায় টাইগাররা। গায়নায় আজকের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

বাংলাদেশের ক্রিকেট টিমের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স যথেষ্ট হতাশাজনক। সর্বশেষ বেশ কয়েকটি খেলাতেই হতাশার ছাপ স্পষ্ট। কিন্তু কেন এই বাজে পারফরমেন্স? ‘জ্যামাইকা গ্লেনার’-এ এক নিবন্ধে বিষয়টি বিশ্লেষণ করেছেন স্পোর্টস বিশ্লেষক টনি বেক্কা।

শুধু বাংলাদেশ দলের বাজে পারফরমেন্সই নয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলাও সম্পূর্ণ ভুল বলে মনে করছেন এই বিশ্লেষক। বিশেষ করে বাংলাদেশের স্পিন ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়রা মোটেই মোকাবেলা করতে পারেনি। এজন্য তাদের বেশি করে অনুশীলন করা উচিত বলেও মন্তব্য তার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রেইগ ব্রাথওয়েট, গ্যাব্রিয়েল, হোল্ডার ও রোচ বর্তমানে শীর্ষ ২০ ক্রিকেটারের তালিকায় রয়েছেন। যদিও তাদের সে অনুযায়ী ভালো খেলতে দেখা যায়নি। পুরনো স্মৃতিকে ঝালিয়ে নিলে তারা হয়ত কিছু অনুপ্রেরণা পাবেন।

আজকের খেলায় কেমন করবে বাংলাদেশ? এ প্রসঙ্গে কয়েকটি বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হয়। বিপরীত দলের বলার ও ব্যাটসম্যানরা কেমন করবেন, খেলোয়াড়দের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স কেমন, পিচ কেমন থাকবে এসবও গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন বিশ্লেষক টনি বেক্কা।

রিপোর্টে প্রকাশ, আজকের খেলার পিচ ফার্স্ট বোলারদের উপযোগী। পিচের আশপাশে কিছু ঘাস রয়েছে। বিশেষ করে স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামে ঘাস বেশি। তবে তা অতিরিক্ত নয়।

বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তামিম ইকবাল, মমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদুল্লাহ প্রায় সর্বত্রই খেলেছেন। আর এ কারণে পিচ তাদের জন্য কোনো সমস্যা নয়।

এদিকে বিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা তাদের নিজেদের মাঠের সুবিধা কিছুটা হলেও পাবেন। অবশ্য বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সে বিষয়টি মোকাবেলা করার অভিজ্ঞতা রয়েছে।

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পারফর্মেন্স দেখে মনে হয়েছে যেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা এ খেলার উপযোগী নন। খেলায় মনে হয়েছে তারা স্ট্রাইক বোলার কেমার রোচের সুইং, শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের পেস ও জেসন হোল্ডারের বাউন্স মোকাবেলা করতে অক্ষম। কয়েকজন ব্যাটসম্যানকে একেবারেই পেস মোকাবেলা করতে পারেন না বলে মনে হয়েছে, মন্তব্য টনি বেক্কার।

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রতিপক্ষের বলিং আক্রমণের মুখে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের একেবারেই আনাড়ি বলে মনে হয়েছে। একের পর এক তারা এমনভাবে আউট হয়েছে যেন তারা ব্যাট ধরার কৌশলই শেখেনি।

এমনকি সোজা ডেলিভারিতেও বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা বলের পাশ দিয়ে খেলেছে। যখন সামনে খেলা প্রয়োজন তখন তারা পেছনে খেলেছে। এতে আউটও হয়েছে একের পর এক।

মূলত ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় দুই টেস্টেই লজ্জার হার বরণ করে বাংলাদেশ। এন্টিগায় সিরিজের প্রথম ম্যাচে তো লজ্জার রেকর্ড গড়ে টাইগাররা। প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানে অলআউট হয়ে নিজেদের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাবার রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় টেস্টেও দেখা যায় পুরনো বাংলাদেশকে। আবারো নিজেদের ব্যর্থতা তুলে ধরেন তামিম-সাকিব-মুশফিকুর-মাহমুদুল্লাহরা। তাই কিংস্টন টেস্টে ১৪৯ ও ১৬৮ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। এবার ১৬৬ রানে হারে টাইগাররা। ফলে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ অসহায়ভাবে হারে বাংলাদেশ।

এবার অবশ্য তেমনটা হবে না বলেই আশাবাদী বাংলাদেশ দল। অধিনায়ক হিসেবে রয়েছেন দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞ মাশরাফি বিন মর্তুজা। ছয় মাস পর ওয়ানডে খেলতে নামছে টাইগাররা। এর আগে জানুয়ারি দেশের মাটিতে শ্রীলংকা-জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। সূত্র : জ্যামাইকা গ্লেনার
 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে