আপডেট : ২২ জুন, ২০১৮ ১৩:২০

ম্যানেজারের দায়িত্ব স্বেচ্ছায় ছেড়েছেন সুজন, ভারপ্রাপ্ত কে?

অনলাইন ডেস্ক
ম্যানেজারের দায়িত্ব স্বেচ্ছায় ছেড়েছেন সুজন, ভারপ্রাপ্ত কে?

পাঠকরা আগেই জেনে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টর প্রায় নিয়মিত অংশ হয়ে পড়া খালেদ মাহমুদ সুজন ওয়েষ্ট ইন্ডিজ যাবেন না। তিনি নিজেই তিন দিন আগে তা জানিয়েছিলেন।

তারপরও কেউ কেউ ভেবে বসেছিলেন, কি জানি হয়ত শেষ মুহুর্তে মত পাল্টাতেও পারে। নাহ মত পাল্টায়নি। খালেদ মাহমুদ সুজন স্বেচ্ছায় ওয়েষ্ট ইন্ডিজ সফরে ম্যানেজারের দায়িত্ব থেকে সরে দাড়িয়েছেন। মোদ্দা কথা, ক্যারিবীয় দ্বীপ পুঞ্জে সুজন ম্যানেজার নন।

তাহলে ম্যানেজার কে? গত কদিন তা নিয়ে জল্পনা কল্পনার ফানুস উড়েছে। কিছু নাম বিক্ষিপ্ত ভাবে এর ওর মুখে উচ্চারিতও হয়েছে। তবে আসল খবর হলো, ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট, তিন ম্যাচের ওয়ানডে আর দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে টাইগারদের সাথে ট্যুর ম্যানেজার হিসেবে থাকবেন সাব্বির খান। বলার অপেক্ষা রাখেনা, বিসিবির ক্রিকেট অপস ম্যানেজার সাবেক জাতীয় ক্রিকেটার সাব্বির খান এর আগেও কয়েকবার ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন।

তবে তারপরও একটা কথা আছে , সাব্বির খান অফিসিয়াল ম্যানেজার হলেও তিনি শুরু থেকে দলের সঙ্গী হতে পারছেন না। ভিসা জটিলতায় পরে তার জাতীয় দলের বহরের সাথে যাওয়া হচ্ছেনা। সব কিছু ঠিক থাকলে আজ মধ্য রাতে ( শুক্রবার দিবাগত রাত ১ টা ৪০ মিনিটে ) ওয়েষ্ট সফরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবে টিম বাংলাদেশ।

সেখানে থাকবেন না সাব্বির। তার ভিসাই হয়নি। সাব্বিরের বদলে বিসিবির হেড অফ মিডিয়া রাবিদ ইমাম ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজারের ভুমিকায় থাকবেন।

বোর্ডের যে স্ট্যান্ডিং কমিটি জাতীয় দল পরিচালনা, পরিচর্যা ও তত্বাবধানের দায়িত্বে, সেই ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান জাগো নিউজকে এ তথ্য দিয়ে বলেছেন, ‘যেহেতু সুজন যাচ্ছেনা, তাই আমরা ক্রিকেট অপস ম্যানেজার সাব্বির খানকেই ওয়েষ্ট সফরে ম্যানেজার পদে মনোনীত করেছি। পুরো সফরে সাব্বিরই ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করবে। তবে তার ভিসা হয়নি এখনো (কাল বৃহষ্পতিবার পর্যন্ত)। তাই সাব্বির ২৩ জুন প্রথম প্রহরে জাতীয় দলের বহরের সাথে ওয়েষ্ট ইন্ডিজ যেতে পারবেনা। তার যেতে কদিন দেরি হবে। সেই সময় বিসিবির সিনিয়র মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করবে।’

রাবিদ ইমাম আজ সকালে জাগো নিউজের সাথে আলাপে তার ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজার হবার বিষয়টি জানিয়ে বলেন, 'ম্যানেজার সাব্বির খান। তিনি ভিসা পাওয়া মাত্র ওয়েষ্ট ইন্ডিজের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন।'

জাতীয় দল কিভাবে কোন এয়ারলাইন্সে ওয়েষ্ট ইন্ডিজ যাবে? আজ মধ্য রাতে ঠিক কয়টায় টাইগারদের ফ্লাইট? তা জানতে চাওয়া হলে রাবিদ জানান, 'শুক্রবার দিবাগত রাত একটা ৪০ মিনিটে ফ্লাইট। রুট হচ্ছে, ঢাকা থেকে দুবাই। দুবাই থেকে নিউইয়র্ক। সেখান থেকে ক্যারিবীয় দ্বীপ অ্যান্টিগা।’

আগেই জানা, টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান দলের সাথে যাচ্ছেন না। তিনি ঈদের ছুটিতে আমেরিকায় চলে গেছেন। এখনো সেখানেই অবস্থান করছেন। যুক্তরাষ্ট্রে দলের সাথে মিলিত হবেন টেস্ট এবং টি টোয়েন্টি অধিনায়ক। নিউইয়র্ক থেকে জাতীয় দলের বহর যখন অ্যান্টিগার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে, সাকিব তখনই দলের সাথে যুক্ত হবেন।

উল্লেখ্য, আগামী ৪ জুলাই থেকে অ্যান্টিগায় বাংলাদেশ-ওয়েষ্ট ইন্ডিজ প্রথম টেস্ট। তার আগে ২৭ ও ২৮ জুন এ্যান্টিগায় একটি দু দিনের প্রস্তুুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। ১২ জুলাই থেকে জ্যামাইকার স্যাবিনা পার্কে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।

আর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু ২২ জুলাই; গায়ানায়।পরের দুটি একদিনের ম্যাচ যথাক্রমে ২৫ ( গায়ানায় ) জুলাই ও ২৮ জুলাই ( সেন্ট কিটসে )। ৩১ জুলাই সেন্ট কিটসের একই ভেন্যুতে প্রথম টি টোয়েন্টি ম্যাচও অনুষ্ঠিত হবে। আর তিন ম্যাচের টি টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ দুটি হবে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ( ৪ ও ৫ আগষ্ট )।

উপরে