আপডেট : ২১ এপ্রিল, ২০১৮ ১০:৫২

‘আমাকে দলে ভিড়িয়ে আইপিএলকে বাঁচিয়েছেন শেবাগ’

অনলাইন ডেস্ক
‘আমাকে দলে ভিড়িয়ে আইপিএলকে বাঁচিয়েছেন শেবাগ’

ক্রিস্টোফার হেনরি ‘ক্রিস’ গেইল। ক্রিকেট বিশ্ব যাকে ব্যাটিং ‘দানব’ হিসেবেই চেনেন। কিন্তু, আইপিএলের ১১তম আসরে ক্রিস গেইল নিলামে অবিক্রিত থেকে যায়, আইপিএলের কোনো দল তাকে নেননি। পরে অবশ্য কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব তাকে দলে নিয়েছে।

বয়স হয়ে গেছে, ফুরিয়ে গেছেন, আর চলে না- নিন্দুকদের এমন ধারণার দাঁত ভাঙা জবাব দিয়েছেন ক্রিস গেইল। তাদের বুড়ো আঙুল দেখিয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে মাঠে নেমে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তিনি। ক্রিস গেইলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ের সুবাদে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ১৫ রানের জয় তুলে নেয় মালকিন প্রীতি জিনতার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে এদিন ৬৩ বলে ১টি চার ও ১১টি ছক্কায় ১০৪ রানের বিধ্বংসী টর্নেডো ইনিংস খেলেন ব্যাটিং ‘দানব’ গেইল। এবার গেইলের সেঞ্চুরির মধ্যদিয়ে খাতা খুলল আইপিএল। এরপর ক্রিস গেইলের দেখানো পথে ২০ এপ্রিল রাতে রাজস্থানের বিপক্ষে ওয়াটসন সেঞ্চুরি করেন।

এই সেঞ্চুরি মধ্যদিয়ে ক্যারিবীয় দৈত্য ২১তম টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক জমজমাট ভারতীয় ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ ক্যারিয়ারে ষষ্ঠ। ১১ মৌসুমে যেকোনো ব্যাটসম্যানের পক্ষে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ড এটি।

এমন কীর্তি যিনি গড়বেন তাকে প্রশংসায় ভাসাবেন রথি-মহারথীরা- এটিই তো স্বাভাবিক। এর ব্যতিক্রম নন পাঞ্জাব আইকন বীরেন্দর শেবাগ।

বীরেন্দর শেবাগ জয়ের পর টুইটারে হাস্যকর দাবি করে বসেন, হেনরি গেইলকে দলে ভিড়িয়ে আইপিএলকে রক্ষা করেছি আমি।

টুইটটি নজর এড়ায়নি গেইলেরও। রসিকতা করতে ছাড়েননি তিনিও। ব্যাটিং ‘দানব’ গেইল বলেন, আমি মনে করি আমাকে ডেরায় ভিড়িয়ে আইপিএলকে বাঁচিয়েছেন শেবাগ। প্রত্যেকেই বলেন, আমার এখনো অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে। আমি এখানে এসেছি আমার নামের প্রতি সম্মান জানাতে, শ্রদ্ধা ধরে রাখতে।

ক্রিস গেইল টি-২০ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। তবুও আইপিএলের ১১তম আসরে বাতিলের খাতায় পড়ে গিয়েছিলেন গেইল। গেইলের বয়স হয়ে গেছে ৩৯। তাই বুড়ো ভেবে নিলামের দুই দফায় তাকে কেনেনি কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। তৃতীয় দফায় ক্যারিবিয়ান দৈত্যকে দলে ভেড়ায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

কিন্তু শেষ পযর্ন্ত দল পেলেও একাদশে জায়গা হচ্ছিল না। অবশেষে নিলামের মতোই পাঞ্জাবের তৃতীয় ম্যাচে সুযোগ পান। পেয়েই বুঝিয়ে দেন, বয়স হচ্ছে কিন্তু এখনো ফুরিয়ে যাননি তিনি। এখনো বিপক্ষ দলকে খুন করার মতো সব অস্ত্রই ধারালো রয়েছে তার। সবশেষ ম্যাচে সেসব অস্ত্রেরই পসরা মেলে ধরলেন গেইল। ব্যাটকে তলোয়ার বানিয়ে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বোলারদের কচুকাটা করেছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫/জামি

উপরে