আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৬:১৯

আসছে আইপিএল, নড়েচড়ে বসছে জুয়াড়িরা

অনলাইন ডেস্ক
আসছে আইপিএল, নড়েচড়ে বসছে জুয়াড়িরা

আসছে আইপিএল। আগামী এপ্রিলে মুম্বাই-চেন্নাই ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে আইপিলের একাদশ আসরের। ভারতে এ খেলা অনুষ্ঠিত হলেও বাংলাদেশে পড়ছে এর ক্ষতিকর প্রভাব। বাংলাদেশের সর্বত্র আইপিএলের প্রতিটি ম্যাচ নিয়ে চলে বাজি বা জুয়া খেলা।

একটা ছোট ঘটনা। সন্ধ্যা ৭টা, মোহাম্মাদপুর জেনেভা ক্যাম্পের (বিহারী ক্যাম্প) এক হোটেলের সামনে এবং ভিতরে কয়েকজন যুবকের জটলা। হোটেলের টিভিতে চলছে আইপিএলের ম্যাচ। হোটেলে বসে কেউ চা খাচ্ছেন, কেউবা অন্যকিছু, আবার কেউ দাঁড়িয়ে খেলা দেখছেন। চলছে খেলা নিয়ে আলোচনা আর বিশ্লেষণ। চায়ের দোকানটিতে উপস্থিত কয়েক যুবকের মধ্যে একধরনের অস্থিরতাও লক্ষ্য করা গেলো। খেলা নিয়ে বার বার মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন তারা।

এদের একজন বলছিলেন, ‘কলকাতার পক্ষে কত? ৩:১! আমার ৫ হাজার?’ আরেকজন বলছিলেন, দিল্লীতে ২ হাজার। সাকিব দুই উইকেট নিতে পারবে না। ৫০০ টাকা লাগাও।

কথাগুলো শুনলে কৌতুহলী হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে এই কথাগুলোই হচ্ছে বেটিং বা জুয়ার সাংকেতিক ভাষা। অবাক করা হলেও সত্যি বিপিএল এবং আইপিএলের সময় প্রতিদিন প্রায় চার থেকে পাঁচ কোটি টাকার জুয়ার ব্যাবসা চলে এই বিহারী ক্যাম্পে। যাকে ভালো ভাষায় বললে ‘বেটিং’ এবং আরেকটু সহজ করে বললে ক্রিকেট নিয়ে জুয়া খেলা। প্রতি বছর আইপিএল এবং বিপিএলের সময় বেশ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে এই বেটিং বা জুয়া।

সেই জুয়া হয় নানাভাবে। দলের হার-জিত, পরের বলে কত রান বা ছয়-চার হবে কি না, পরের ওভারে ব্যাটসম্যান আউট হবেন কি না, একজন বোলার কত উইকেট পাবেন, ব্যাটসম্যান কত রান করবেন, দলের কত রান হতে পারে, নির্দিষ্ট দল কত রান বা উইকেটের ব্যবধানে জিতবে ইত্যাদি ছোটখাটো প্রায় সব বিষয় নিয়েই চলছে বাজি ধরা। বাজির দরও ঠিক করেন নিজেরাই।

তবে শুধু মোহাম্মাদপুরের এই বিহারী ক্যাম্প নয়, রাজধানীসহ দেশের প্রতিটা পাড়া-মহল্লায় চলে ক্রিকেট নিয়ে জমজমাট জুয়ার আসর। বিশেষ করে বিপিএল এবং আইপিএলকে ঘিরে এই প্রবণতা আরও বেড়ে যায়।

এমনকি গ্রামগঞ্জেও পুরোদমে চলে ক্রিকেট নিয়ে এই জুয়া বা বেটিং। বিপিএল, আইপিএল, বিশ্বকাপ, ওয়ানডে, এমনকি দেশ-বিদেশের টেস্ট খেলা ঘিরেও চলে বাজিকরদের রমরমা জুয়া। যেখানে জড়িয়ে পড়েছেন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী, যুবক ও ব্যবসায়ীসহ অনেকেই। সমাজের শ্রমজীবী মানুষেরা, যারা ‘দিন আনে দিনে খায়’ তারাও এই জুয়ার জালে পড়ে হারাচ্ছেন কষ্ট করে জমানো সামান্য পুঁজি।

অনেকই আবার এই জুয়ার খপ্পরে পরে যখন নিঃস্ব হচ্ছেন তখন জুয়ার পুঁজি যোগাতে চুরি ও ছিনতাইয়ের মতো বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডেও জড়িয়ে পড়ছেন। এছাড়া স্কুল-কলেজের কোমলমতি ছাত্ররা বিপথগামী হচ্ছে। একইসঙ্গে জুয়ায় হার-জিতকে কেন্দ্র করে পারিবারিক ও সামাজিক অস্থিরতা দিন দিন বাড়ছে। গত বছর বিপিএলের সময় রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাসিম আহমেদকে (২৩) বিপিএল জুয়াতে বাঁধা দেওয়ার কারণে হত্যা করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নগরীর নিম্নআয়ের লোকজনের বসতি যেখানে আছে, এমন এলাকার চায়ের দোকান, গলির ভেতর, বিভিন্ন ক্লাব-সমিতির অফিসেই বেশি বসে আইপিএল নিয়ে জুয়া খেলা।

তবে সবচেয়ে অবাক করা বিষয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিভিন্ন সাইটের মাধ্যমে চলে এই জুয়া বা বেটিং খেলা। ক্রিকেট বিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোতেও দেখা যায় বেটিং এর অপশন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে