আপডেট : ২২ অক্টোবর, ২০১৭ ১৮:১১

পঞ্চাশের নায়ক মাশরাফির জয়ের পাল্লা ভারী

অনলাইন ডেস্ক
পঞ্চাশের নায়ক মাশরাফির জয়ের পাল্লা ভারী

অধিনায়কত্বে পঞ্চাশ টপকালেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের ভরসার প্রতীক মাশরাফিই আজ ইস্ট লন্ডনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দেশকে নেতৃত্ব দিতে নামবেন ৫০তম ওয়ানডেতে। একটা বিশেষ মাইলফলক তো বটেই; উদযাপনেরও দারুণ একটা উপলক্ষ। কিন্তু সেই উদ্‌যাপন বহুগুণ আনন্দময় হবে, যদি আজকের ম্যাচটা বাংলাদেশ জিততে পারে। দলের অন্য সবাই কি এটি নিয়ে ভাবছেন? 

২০০১ সালের ৮ নভেম্বর আন্তর্জাতিক অভিষেক ঘটে মাশরাফির। আজ থেকে ৮ বছর আগেই তিনি জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব পেয়েছিলেন। ২০০৯ সালে সব সংস্করণেই নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছিলেন। কিন্তু ‘মন্দ কপাল’, সেই গৌরবটা ঠিকমতো উদ্‌যাপন করতে দেয়নি তাঁকে। চোটে জর্জর হয়ে অধিনায়কত্ব থেকে সরে যেতে হয় তাঁকে। সেই সময় থেকে অধিনায়কত্ব করলে ৬০ কেন, এত দিনে হয়তো অধিনায়কত্বের শততম ম্যাচ উদ্‌যাপন করা হয়ে যেত মাশরাফির। দুই হাঁটুর চোট মিলিয়ে যিনি মাঠের বাইরেই ছিলেন বেশির ভাগ সময়। কিন্তু বারবার ফিরে এসেছেন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স ছিল ভুলে যাওয়ার মতোই। সে বছরের শেষ দিকেই পরের বিশ্বকাপকে সামনে রেখে মাশরাফির হাতে তুলে দেওয়া হলো নেতৃত্ব।

অধিনায়ক হিসেবে তাঁর সেরা অর্জন কোনটা—এটা বিচার করতে গিয়ে একটু সমস্যাতেই পড়তে হয়। তবে প্রতিযোগিতার গুরুত্ব বিচারে অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলাটাই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্জন। আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেদের সেরা ৮-এ তুলে ক্রিকেটের ‘এলিট’ টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে যোগ্যতা অর্জনও বড় সাফল্য তাঁর। আর এ বছর জুনে সেই চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেই সেমিফাইনালে খেলার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ সীমিত ওভারের ক্রিকেটে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছে সমীহ করার শক্তি হিসেবেই।

এর বাইরে ভারত, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজ জয় দেশের ক্রিকেটের বড় অর্জন। সে অর্জন তো মাশরাফির হাত ধরেই। বাংলাদেশের ক্রিকেটে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকার সব ব্যবস্থাই মাশরাফি করে রেখেছেন ৩৫ বছর বয়সেই।

ইস্ট লন্ডনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের সম্মান ছাড়া পাওয়ার কিছু নেই। টেস্ট সিরিজে ধোলাই খেতে হয়েছে। প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ওয়ানডে সিরিজও হাতছাড়া। চোট-জর্জর বাংলাদেশ দলে আজ থাকবেন না দুই সেরা খেলোয়াড় তামিম ইকবাল ও মোস্তাফিজুর রহমান। এমন দুর্দিনে দলকে উজ্জীবিত করার উপলক্ষ একটাই—এটা মাশরাফির অধিনায়কত্বের ৫০তম ম্যাচ। খাদের কিনারায় পড়ে গেলে কীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়, সেটি মাশরাফি খুব ভালো করেই জানেন। শেষ ম্যাচে মাথা উঁচু করে, জার্সির কলার তুলে দিয়ে আজ না হয় ১১টা মাশরাফিই নামুক ইস্ট লন্ডনে।

সিরিজ বা র‍্যাঙ্কিং নয়, আজকের ম্যাচটা মাশরাফির সম্মানেই লড়ুক বাংলাদেশ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে