আপডেট : ২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৩০

বাংলাদেশের টার্গেট ১৪৬ রান

স্পোর্টস ডেস্ক
বাংলাদেশের টার্গেট ১৪৬ রান

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ২৮তম ম্যাচে আগে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৫ রান সংগ্রহ করেছে। টাইগার পেসাররাই নিয়েছেন কিউইদের সবক’টি উইকেট। মুস্তাফিজ একাই নেন ক্যারিয়ার সেরা পাঁচটি উইকেট। এছাড়া, আল আমিন দুটি আর মাশরাফি একটি করে উইকেট তুলে নেন।

টাইগারদের জন্য নিয়মরক্ষার এ ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ড দলপতি কেন উইলিয়ামসন। টাইগারদের হয়ে বোলিং শুরু করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। নিউজল্যান্ডের হয়ে ব্যাটিং শুরু করেন কেন উইলিয়ামসন এবং অভিষিক্ত হেনরি নিকোলস। মার্টিন গাপটিলের পরিবর্তে খেলতে নামেন নিকোলস।

টাইগার দলপতির প্রথম ওভার থেকে কিউই ওপেনাররা তুলে নেন ৯ রান। শুভাগতর দ্বিতীয় ওভারে আরও ৬ রান যোগ করে কিউইরা। সাকিবের করা তৃতীয় ওভারে ৮ রান যোগ হয় স্কোরবোর্ডে। চতুর্থ ওভারে বোলিংয়ে এসে মুস্তাফিজ দেন মাত্র ২ রান। তবে, ইনিংসের শেষ বলে নিকোলসকে (৭ রান) বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন কাটার স্পেশালিস্ট।

দলীয় ২৫ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড দলীয় ৫৭ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায়। নিজের প্রথম ওভারেই আঘাত হানার পর নিজের দ্বিতীয় ওভারেও আঘাত হানেন মুস্তাফিজুর রহমান। নবম ওভারের শেষ বলে আরেক ওপেনার উইলিয়ামসনকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান তিনি। বিদায় নেওয়ার আগে উইলিয়ামসন ৫টি চার আর একটি ছক্কায় ৩২ বলে ৪২ রান করেন।

পাওয়ার প্লে’র ছয় ওভারে নিউজিল্যান্ড এক উইকেট হারিয়ে তোলে ৩৯ রান। ১০ ওভার শেষে কিউইরা দুই উইকেট হারিয়ে ৫৯ রান সংগ্রহ করে। ৯২ বলে দলীয় শতক করে উইলিয়ামসন বাহিনী।

ইনিংসের ১৫তম ওভারের পঞ্চম বলে কলিন মুনরোকে বোল্ড করেন আল আমিন। ৩৩ বলে একটি চার আর দুটি ছক্কায় মুনরো করেন ৩৫ রান। দলীয় ৯৯ রানের মাথায় নিউজিল্যান্ড তৃতীয় উইকেট হারায়।

ইনিংসের ১৬তম ওভারে মাশরাফি বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন কোরি অ্যান্ডারসনকে (০)। ইনিংসের ১৮তম ওভারে মুস্তাফিজের স্লোয়ারে বোকা-বনে যান গ্রান্ট ইলিয়ট। শুভাগত হোমের দুর্দান্ত ক্যাচে সাজঘরে ফেরার আগে তিনি করেন ৯ রান। পরের ওভারে আল আমিন ফেরান রস টেলরকে। এবারে অসাধারণ ক্যাচটি লুফে নেন মোহাম্মদ মিঠুন। আউট হওয়ার আগে টেলর ২৪ বলে ২৮ রান করেন।

শেষ ওভারে বোলিং আক্রমণে এসে চতুর্থ বলে মুস্তাফিজ বোল্ড করেন ৩ রান করা সান্টনারকে। পরের বলেই বোল্ড করেন নাথান ম্যাককালামকে। তবে, হ্যাটট্রিক বঞ্চিত হতে হয় টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং করা মুস্তাফিজকে।

কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় শুরু হয় ম্যাচটি।

জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের পর নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুড়ে দাঁড়ায় টাইগাররা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াই করেই হার মানে লাল-সবুজরা। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে স্বাগতিক ভারতকে কাঁপিয়ে দিয়ে মাত্র এক রানের ব্যবধানে হার মানে মাশরাফি-মুশফিক-সাকিব-তামিম-সৌম্য-মুস্তাফিজরা।

তবে, বিশ্বমঞ্চের শেষ ম্যাচটি জয়ের আনন্দে রাঙিয়ে রাখতে চায় বাংলাদেশ। চলমান বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের পারফরম্যান্স বেশ আশা-জাগানিয়া। প্রথম তিন ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে প্রথম দল হিসেবে ব্ল্যাকক্যাপসরা নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। বিশ্বকাপের ফেভারিট দল হিসেবে গন্য হচ্ছে ‍তারা। অপরাজিত থেকেই কেন উইলিয়ামসনের দল চাইবে সেমিতে লড়তে। জয় ছাড়া বিকল্প কিছু ভাবার কথা নয় তাদের। বাংলাদেশের চাওয়াও জয়। টি-টোয়েন্টির এক নম্বর দল ভারতের বিপক্ষে যারা চোখে চোখ রেখে লড়াই করতে পারে সেখানে নিউজিল্যান্ডকে খুব কঠিন প্রতিপক্ষ ভাবারই-বা কী আছে?

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, শুভাগত হোম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), আল-আমিন হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

নিউজিল্যান্ড একাদশ: হেনরি নিকোলস, কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), কলিন মুনরো, কোরি অ্যান্ডারসন, রস টেলর, গ্র্যান্ট এলিয়ট, লুক রঞ্চি, মিশেল সান্টনার, মিশেল ম্যাকক্লেনাঘান, ইশ সোধি, নাথান ম্যাককালাম।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

উপরে