আপডেট : ২৪ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৪৭

পাকিস্তানের সাবেকদের ক্ষোভ

স্পোর্টস ডেস্ক
পাকিস্তানের সাবেকদের ক্ষোভ

এশিয়া কাপে পুরোপুরি ব্যর্থ পাকিস্তান ক্রিকেট দল। এশিয়া কাপ শেষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়ে ঘুরে দাড়ানোর ইঙ্গিত দিলেও শেষ দুই ম্যাচে নিউজিল্যান্ড ও ভারতের কাছে হেরে কার্যত বিশ্বকাপের লড়াই থেকে ইতোমধ্যেই ছিটকে পড়েছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপে দলের বাজে পারফরম্যান্স কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা।

কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন খেলোয়াড়দের কমিটমেন্ট নিয়েও। দলের সাবেক পেসার শোয়েব আখতার বলেন, 'যে দলের খেলোয়াড়রা শুধুমাত্র নিজেদের আয়ের বিষয়টি নিয়ে মাথা ঘামায় সেই দলের কাছ থেকে এই পারফরম্যান্সে আমি মোটেই বিস্মিত হইনি।'

আখতার আরও বলেন, ‘এই ধরনের ব্যর্থতা এক রাতে হয়নি, গত কয়েক বছর ধরেই দলের মধ্যে বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে। আমি আগেই সতর্ক করে বলেছিলাম এমন দিন আসবে যখন বাংলাদেশের সাথে জেতাটাও কঠিন হয়ে যাবে। তখন কেউ এমনকি বোর্ডও আমার কথা শোনেনি। আজ তো তাই হচ্ছে।’

সাবেক এই তারকা পেসারের মতে, দলের এই দুর্দশা থেকে পরিত্রাণের একটি উপায় হচ্ছে যারা সত্যিকার অর্থেই ভাবে তাদের কাজের সুযোগ করে দেয়া, যারা কোনসময়ই অর্থ, বেতনের পিছনে দৌঁড়ায়নি। পাকিস্তান ক্রিকেটকে ঘুড়ে দাঁড়াতে হলে বেশ ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সবচেয়ে হতাশার বিষয় হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে পাকিস্তান ক্রিকেটের সাথে জড়িত আছে তারা কোনদিনও পদ্ধতি বা পারফরম্যান্সে উন্নতির চিন্তা করেনি, অর্থই তাদের কাছে সব।’

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও ব্যাটিং তারকা জাভেদ মিয়াঁদাদও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের পরে অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি ও কোচ ওয়াকার ইউনুসের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এই পরাজয়ের জন্য সকলেই দায়ী। বোর্ড, নির্বাচক, অধিনায়ক ও কোচ, এখন তারা খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে কেন? গত এক বছরে তারা খেলোয়াড়দের জন্য কিছু তো করেইনি আর দলের উন্নতির কথাও ভাবে নি।’

মিয়াঁদাদের মতে, কৌশলগত বাজে সিদ্ধান্ত, বাজে দল নির্বাচনই গত এক বছরে পাকিস্তানকে শেষ করে দিয়েছে। এই দলে ভাল করার মত মানসিকতা কারো মধ্যেই নেই। নির্বাচক, কোচ ও অধিনায়ক বারবার একই ভুল করে যাচ্ছে কিন্তু এর কোন প্রতিকার নেই।

সাবেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ ইউসুফ বলেছেন, ‘নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দলের ব্যাটিং অর্ডারেই ভুল ছিল। একটি ভাল শুরুর পরেও কেন খালিদ লতিফকে পাঠানো হলো। ওখানে সরফরাজ বা শোয়েব মালিককে ব্যবহার করা যেত। ভবিষ্যতে গুণগত খেলোয়াড় উঠে না এলে পাকিস্তানী ক্রিকেটের কখনই উন্নতি হবে না।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

 

উপরে