আপডেট : ২১ মার্চ, ২০১৬ ১৩:১৫

তাসকিনের হাতে ধোনির মুণ্ডু, ছবিটির মূল হোতা ভারতের সুমিত কুমার

স্পোর্টস ডেস্ক
তাসকিনের হাতে ধোনির মুণ্ডু, ছবিটির মূল হোতা ভারতের সুমিত কুমার

এশিয়া কাপ চলাকালীন সময়ে অনলাইনে একটি অত্যন্ত করদর্য জাতীয় ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। ছবিটি মূলত হলিউডি ছায়াছবি “থ্রি হান্ড্রেড” এর পোস্টারকে ফটোশপ করে বানানো যেখানে দেখা যাচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের আলোচিত গতি দানব তাসকিন আহমেদ তাঁর বাম হাতে একটি ধারালো তলোয়ার ধরে রেখেছে যেখান থেকে ঝরে পড়ছে রক্ত ও তাসকিনের ডান হাতে ধরে রাখা বেনাপোলের ওপারের ক্রিকেট দলের মাঝ বয়সী অধিনায়ক মহিন্দ্র ধনীর একটি কাটা মাথা।

এই ছবিটি কোথা থেকে এলো, কিভাবে এলো সেটি কখনই প্রমাণ করা যায়নি। প্রাথমিক ভাবে অত্যন্ত স্টেরিওটাইপড ভাবে সবাই ধরে নিয়েছিলো যে ছবিটা হয়ত বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেট ভক্ত অত্যন্ত আবেগের স্থান থেকে করেছে। কিন্তু বিপত্তিটা ঘটেছে ও সন্দেহ তৈরী হয়েছে ঠিক তখন যখন এই ছবিটি ধরে ধরে ভারতের সব প্রথম সারির মিডিয়া গ্রুপগুলো বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রোপাগান্ডায় মেতে উঠেছিলো। এমকি অসভ্যতার সকল সীমারেখা ছেড়ে বেনাপোলের ওপারের দেশটি বলে আসছিলো যে এই ছবিটির কারনেই নাকি তাসকিন আহমেদের বোলিং ব্যান করা হয়েছে।

ভারতের সিধু সারাটা জীবন বাংলাদেশকে নিয়ে উপহাস করেছে, কৌতূক করেছে। শেষ পর্যন্ত সে বাংলাদেশকে কাংলাদেশ বলেছে। বিশ্বকাপের আগে মওকা মওকা গান বানিয়ে নোংরামি করেছে, এই টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপের আগে তারা ভিডিও বানিয়েছে “পেহলা শিকার” নামে। ভারতের মিডিয়াকে আশ্চর্যজনকভাবে এ নিয়ে কখনোই উচ্চকিত হতে দেখা যায়নি অথচ এই সুনির্দিষ্ট ছবি নিয়ে ভারতের এই মাতামাতি খুব সন্দেহের ছিলো।

এদিকে এই ছবি কোথা থেকে এসেছে এটি নিয়ে বাংলাদেশেও কৌতূহলের শেষ নেই। আজকে বের হয়ে এসেছে যে এই ছবিটি মূলত ভারত থেকেই তৈরী করা হয়েছে। সুমিত কুমার নামে এক ভারতীয় ক্রিকেট বিষয়ক লেখক একটি লেখা লিখেন ক্রিক স্পিরিট নামে একটি সাইটে। যেখানে এই ছবিটি ব্যবহার হয় যদিও উল্লেখিত ছবিটি ভাইরাল হয়েছে তারও দুইদিন আগে। কিন্তু বিপত্তির স্থানটি হচ্ছে যে ছবি নিয়ে এত মাতামাতি সে ছবিটিতে সব সময় দেখা গেছে তাসকিনের কোমরের উপর থেকে। কখনোই এই ছবির পূর্ণাঙ্গ ভার্সন অনলাইনে আসেনি এবং কেউ তা দেখেওনি। কিন্তু সুমিত কুমার নামে সে ভদ্রলোকের ব্যাপারে অনুসন্ধানে নামতেই দেখা মিলেছে যে সুমিত এই ছবিটির মাস্টার কপির মূল মালিক। তার নামেই এই ছবিটি অনলাইনে রয়ে গেছে। যে ছবিতে তাসকিন আহমেদের ট্রাউজার, ডান হাতের দিকে আরো বিশাল অংশের ক্যানভাস, ডান দিকেও ক্যানভাস্টা বেশ চওড়া যেগুলো আগে কখনো কেউ দেখেনি।

স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে যে সুমিত কুমার নামে এই ভারতীয় এই পূর্ণ ছবিটি কোথায় পেলেন। যদিও ৫ই মার্চের একটি লেখায় তিনি ওই উল্লেখিত ছবিটির একটি কাটা ভার্সন দিয়ে বলেছেন ছবিটি তিনি “স্পোর্টস কিডা” নামের ওয়েব সাইট থেকে পেয়েছেন কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে সেইখানে পূর্নাঙ্গ ছবিটি দেয়া নেই শুধু পূর্ণাঙ্গ ছবিটি রয়ে গেছে গুগল ইমেজ স্টোরেজে আর সেটি রয়েছে সুমিতের নামেই। এই থেকে সন্দেহ প্রবল ভাবে দানা বেঁধেছে যে ছবিটার মূল হোতা এই ভারতের সুমিত কুমার।

অনেক বাংলাদেশী ক্রীড়াপ্রেমীরা শুরু থেকেই ভারতের দিকেই আঙ্গুল নির্দেশ করে এসেছেন। তাঁদের মতে এই ধরনের নোংরা খেলা ভারতের পক্ষেই খেলা সম্ভব যা তারা সব সময় করে আসছে। ভারত বাংলাদেশকে জব্দ করবার জন্য, বাংলাদেশের ক্রিকেট দর্শক জঙ্গী এটা প্রমাণ করবার জন্যই এই অসভ্য অস্ত্রটি চেলেছে বলে অনলাইন ব্যবহারকারীদের ধারনা। অনলাইন ব্যবহারকারীরা আরো বলছেন যে এই ছবিটির ব্যাপারে বাংলাদেশের সবাই বিরুদ্ধ চারন করেছিলো শুরু থেকেই, তবে তারপরেও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এই ছবি ব্যবহার করে কেন এই অশোভন প্রোপাগান্ডা?

সুমিতের নামে পূর্ণাঙ্গ ছবিটাই সব রহস্যের জট খুলে দিল অবশেষে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে