আপডেট : ২০ মার্চ, ২০১৬ ১৯:২৫

"তিন মোড়লের" বোলাররাই বার বার পার পেয়ে যায়!

স্পোর্টস ডেস্ক

ক্রিকেটে আইসিসির কলঙ্কের এমন অধ্যায়ের শিকার কেবল তাসকিন-সানিরাই নন, অবচারের শিকার হয়েছেন মুত্তিয়া মুরালিধরন, সুনিল নারাইন, সাইদ আজমল, শোয়েব আখতারের মতো কিংবদন্তি বোলাররা। কিন্তু অবাক করা মতো মতো হলেও সত্যি যে ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের কোনো বোলারকে এখন পর্যন্ত বোলিং অ্যাকশন নিয়ে পরীক্ষার দণ্ডে পড়তে হয়নি।

গতকাল তাসকিন এবং আরাফাত সানিকে অবৈধ ঘোষণা করে সাময়িক বহিষ্কার করার পর জনপ্রিয় ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার শামীম আশরাফ চৌধুরী বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানান তার হতাশার কথা। আইসিসির একতরফা সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দাও জানান তিনি। আইসিসির এমন অনৈতিক আঘাতের লক্ষ্য কেবল বাংলাদেশ নয় এমনটা জানিয়ে তিনি বললেন, “অনেকে মনে করছেন বাংলাদেশকে টার্গেট করা হচ্ছে কিনা। কিন্তু আমি সেটা সম্পূর্ণ বিশ্বাস করছিনা। আমার মনে হচ্ছে অন্য কিছু। সুনীল নারায়ণের মতো বোলার, সাঈদ আজমল, মুত্তিয়া মুরালিধরণ, মো: হাফিজ এদের বোলিং অ্যাকশন নিয়েও কিন্তু প্রশ্ন তোলা হয়েছিল”।

আইসিসির "তিন মোড়ল" নীতির কথা স্মরণ করিয়ে শামীম আশরাফ বলেন, “লক্ষ্য করবেন তিন মোড়ল যারা আইসিসি নিয়ন্ত্রণ করছে-অর্থাৎ ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড-তাদের কোনো দল থেকে কোনো খেলোয়াড়ের ওপর কিন্তু কোনো ধরনের কিছুই প্রশ্নবিদ্ধ হয়নি। সুতরাং শুধু যে বাংলাদেশের ওপর প্রশ্ন উঠছে তা নয়। হয়তো এর থেকেও বড় কিছু। বাংলাদেশও এর আওতায় পড়ে যাচ্ছে”।

আসলেই শামীম চৌধুরী যোগ্য কথাটিই বললেন। আইসিসির "তিন মোড়ল" নীতির কড়াল আঘাতে শুধু বাংলাদেশের বোলাররাই জর্জরিত নয়, তাদের কলঙ্কিত এই অধ্যায়ের শিকার বাকি সবাই। শুধু তিন দেশ ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডই বার বার পার পেয়ে যাচ্ছে। আইসিসি যেন বিশ্ব ক্রিকেট নয়, বরং এই তিন দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে