আপডেট : ১৯ মার্চ, ২০১৬ ২১:৩৭

ভারত যাওয়ার আগে নন-এসি বাসে সাকলায়েন!

স্পোর্টস ডেস্ক
ভারত যাওয়ার আগে নন-এসি বাসে সাকলায়েন!

হুট করেই যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দলে যোগ দেওয়ার ডাক এসে যাবে, সেটি তো আর আগে থেকে জানা সম্ভব ছিল না। জানলে কী আর রাজশাহীতে নিজের বাড়ীতে গিয়ে বসে থাকতেন বহুদিন ধরে জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার আকুল অপেক্ষায় থাকা সাকলায়েন সজীব? ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ফার্স্ট ক্লাস আসর বিসিএল শেষ হতে না হতেই তাই গত বৃহষ্পতিবার ছোটেন নিজ ঠিকনায়।কিন্তু রাজশাহীর সুলতানাবাদে বাবা-মা, ভাই-ভাবী আর স্ত্রীর কাছে আর বেশিক্ষণ থাকতে পারলেন কই অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য নিষিদ্ধ আরাফাত সানির জায়গায় সুযোগ পাওয়া এ বাঁহাতি স্পিনার।

শনিবার দুপুরেই খবর পেয়েছেন রাতের ফ্লাইট ধরার জন্য তৎক্ষণাৎ ঢাকায় রওনা হতে হবে তাঁকে। খবর পেয়েই রুদ্ধশ্বাসে ঢাকায় ছোটা এ স্পিনার জাতীয় দলের সদস্য মানেই তাঁর জন্য বরাদ্দ বিমানের বিজনেস ক্লাসের টিকিট। আর বিজনেস ক্লাসের আরামেই ভারতে উড়াল দেওয়া এ ক্রিকেটারের রাজশাহী থেকে ঢাকায় ফেরাটা কিন্তু কম ঝক্কির ছিল না। তাঁকে যে চড়তে হয়েছিল নন-এসি বাসে!

যদিও তাঁর শহরের সঙ্গে ঢাকার বিমান যোগাযোগ আছে। প্রতিদিন বিভিন্ন বেসরকারী বিমান সংস্থার বেশ কিছু ফ্লাইটই ঢাকা-রাজশাহী যাওয়া-আসা করে। সাকলায়েনও তেমনই এক ফ্লাইটে চেপে দ্রুত ঢাকায় ফিরবেন বলে ভেবেছিলেন। কিন্তু বিধিবাম! তিনদিনের সরকারী ছুটির শেষদিন শনিবারে রাজশাহী থেকে ঢাকামুখী মানুষের চাপ যে ফ্লাইটের সীমিত আসনসংখ্যার ওপরও পড়েছিল। তাই রাজশাহীর বিমানবন্দরে গিয়ে এ স্পিনার দেখেন, ‘কোনো ফ্লাইটেই কোনো টিকিট নেই।’ বিমানবন্দর থেকে এরপর বাসের টিকিটের খোঁজে যাওয়ার সময় তিনি একাও নন। কারণ বিশ্বকাপে যাচ্ছেন বলে কথা! খবর পেয়েই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসা কাছের লোকরা বিদায় দিতে বিমানবন্দরেও হাজির। কিন্তু তাদের সংখ্যাটা এত বেড়ে যায় যে দু-দুটো মাইক্রোবাসও ভাড়া করতে হয় সাকলায়েনকে।

বিমানবন্দর থেকে হতাশ হয়ে ফেরার পর তাদের নিয়েই বাসের কাউন্টার থেকে কাউন্টারে টিকিটের খোঁজ চলে। কোথাও এসি বাসের টিকিটও পাননি সাকলায়েন। তবে অবশেষে দেশ ট্রাভেলসের একটি নন-এসি বাসে তাঁর ঢাকায় ফেরার বন্দোবস্ত হয়। তাতে একটি টিকিট পেয়েই ঢাকার পথে ছুটতে পারেন! পথের ঝক্কি এতে বাড়লেও রাতে বিজনেস ক্লাসের আরাম নিশ্চয়ই সেই ধকল মুছে দিয়েছে!

উপরে