আপডেট : ১৬ মার্চ, ২০১৬ ১৪:১১

ইডেনে একমাত্র অভিজ্ঞ সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক
ইডেনে একমাত্র অভিজ্ঞ সাকিব

ইডেনে মাত্র একটি অভিজ্ঞতাই আছে বাংলাদেশের। সেটাও আজ থেকে ২৫ বছর আগের। ১৯৯০ সালে এশিয়া কাপের সেই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ৭১ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে হেরেও মিলেছিল প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিকভাবে ম্যাচসেরা হওয়ার গৌরব।

বর্তমানে ধারাভাষ্য নিয়ে ব্যস্ত থাকা আতাহার আলী খান ৭৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেও সেই ম্যাচে ছিলেন অপরাজিত। তাই দলের হারের পরও ম্যাচসেরার পুরষ্কার উঠেছিল তার হাতে। ২৫ বছর পর এসে ঐতিহাসিক ইডেন গার্ডেনে ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এটা হবে বাংলাদেশের দ্বিতীয় অভিজ্ঞতা।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টেনে পাকিস্তানের বিপক্ষে এই ইডেন গার্ডেনেই আজ বুধবার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আতাহার আলী খানদের সেই দলটির পর এই মাঠে সাকিব আল হাসান ছাড়া বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটারই খেলেননি। সাকিবও খেলেছেন আইপিএলের বদৌলতে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে।

তবে এমন একটি ভেন্যুতে ম্যাচ খেলার স্বপ্ন প্রায় সব ক্রিকেটারেরই। ব্যতিক্রম নন বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও। তাই তো ইডেনে ম্যাচ খেলার আগে রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যাচ্ছে মাশরাফিকেও।

ইডেনে খেলা নিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলছেন, ‘কয়েকটা মাঠ আছে সবাই খেলতে চায়। যেমন লর্ডস, মেলবোর্ন এবং ইডেন গার্ডেন। ইডেন গার্ডেনে আসলে কখনোই খেলা হয়নি। ছোটবেলা থেকেই শুনেছি ইডেন গার্ডেনের কথা। আমি বলবো সব খেলোয়াড়ই রোমাঞ্চিত। সবাই চাইবে, আমিও ব্যক্তিগতভাবে চাইবো এটাকে স্মরণীয় করে রাখতে। যে ফরম্যাটে খেলতে নামছি, যে কোন কিছুই হতে পারে। চেষ্টা করব সেরাটা দেয়ার।’

এমন গুরুত্বপূর্ণ একটি ম্যাচে খেলতে হচ্ছে সম্পূর্ণ অচেনা এক উইকেটে। যে মাঠের সাথে কোনো স্মৃতিই বাংলাদেশের বর্তমান দলটির। তাই সাকিব আল হাসানের অভিজ্ঞতাই ভাগ করতে চান মাশরাফি, ‘সাকিব আমাদের জন্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। শেষ সাত-আট বছর সে যেভাবে আমাদের জন্যে পারফর্ম করেছে সেটা বিশেষ কিছু। এই মাঠ থেকে আমরা তার থেকে অনেক তথ্য নিতে পারব। কেকেআরের হোমগ্রাউন্ড এটি।’

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

উপরে