আপডেট : ৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৩০

আরেকটি ঐতিহাসিক মার্চের অপেক্ষায় বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
আরেকটি ঐতিহাসিক মার্চের অপেক্ষায় বাংলাদেশ

৭১’র মার্চে ভয়াবহ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলো পুরো জাতি। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সেটা ছিলো আমাদের মুক্তির সংগ্রাম। আজ ২০১৬’র মার্চ। আজকের যুদ্ধটাও দুই দেশের। কিন্তু কোন অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধ নয়। এ যুদ্ধটা ব্যাটে বলের। বর্তমান সময়ের টি টোয়েন্টি ফরম্যাটের এক নম্বর দলের বিপক্ষে নয় নম্বর দলের খেলা। কিন্তু মানসিকতায় ভারতের চেয়ে কোন অংশেই কম নয় টাইগাররা। অপেক্ষা আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার। তারপরই মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে হবে মহাদেশীয় সেরার মুকুট জেতার ক্রিকেটযুদ্ধ। এ লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ ও ভারত।
মহেন্দ্র সিং ধোনি বাহিনী নিজেদের ‘ফেভারিট’ দাবি করলেও এ লড়াইয়ে কোনো অংশে মাশরাফি বিন মুর্তজা বাহিনীকে পিছিয়ে রাখছেন না ক্রিকেটবোদ্ধারা। যদিও আজ (রবিবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মিরপুরে শুরু হওয়া ক্রিকেটযুদ্ধেই হবে তার ফয়সালা।
তার আগে আপাতত মিরপুরে সংশ্লিষ্ট ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবি) শাখায় চলছে ‘টিকিটযুদ্ধ’। খেলা শুরু হওয়ার মাত্র কয়েকঘণ্টা হলেও ইউসিবি থেকে টিকিট পেতে দুপুর ২টা পর্যন্তও দেখা গেছে দীর্ঘ লাইন।
এশিয়া কাপের এ শিরোপা জেতার লড়াই শুরু হওয়ার আগে দারুণ উচ্ছ্বাস-উন্মাদনায় মেতেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা। পাড়ায়-মহল্লায় উল্লাস-মিছিলের প্রস্তুতির পাশাপাশি পুরো ফেসবুক ভেসে যাচ্ছে ক্রিকেটীয় আবেগে। লাখ লাখ ফেসবুকার তাদের প্রোফাইলের ছবি পরিবর্তন করেছেন টাইগারদের সমর্থনে লাল-সবুজের রঙে। পুরো ফেসবুকই যেন এখন লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের শক্তি-সাহস যোগানোর গ্যালারি হয়ে উঠেছে।
টাইগার ক্রিকেটপ্রেমীরা বলছেন, বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মা-ধোনিদের ব্যাটিং লাইনআপের শক্তিশালী ভারত প্রতিদ্বন্দ্বী হলেও বাংলাদেশের প্রত্যাশার সবচেয়ে বড় কারণ সাম্প্রতিক ধারাবাহিক স‍াফল্য ও ঈর্ষণীয় ‘গ্যালারি-শক্তি’।
বাংলাদেশ ফাইনালে পৌঁছেছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মতো সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারিয়েই। প্রত্যাশার পারদ এ কারণেও ঊর্ধ্বমুখী যে, এর আগে ২০০৭ বিশ্বকাপ ও ২০১২ এশিয়া কাপে ভারতকে হারানোর অর্জন আছে বাংলাদেশের। আছে গত বছর পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ এবং ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজ হারিয়ে ফেরত পাঠানোর মতো বিস্ময়কর অর্জনও।
‘রূপকথার’ মতো এমন সাফল্যগাঁথা নিয়ে মাঠে নামলে ঐতিহাসিক মার্চে আরেকবার গর্জন করে উঠতেই পারে মাশরাফি বিন মুর্তজার ‘অদম্য’ বাংলাদেশ।

উপরে