আপডেট : ৫ মার্চ, ২০১৬ ১৪:২৫

ভারত 'বধে' প্রস্তুত টাইগাররা

স্পোর্টস ডেস্ক
ভারত 'বধে' প্রস্তুত টাইগাররা

পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচ জয়ের পর এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামতে পুরোপুরি প্রস্তুত মাশরাফির বাংলাদেশ। টাইগারদের ইতিহাস গড়ার ম্যাচ দেখতে মুখিয়ে আছে ক্রিকেটপ্রেমীরা। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হলে তা হবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য দারুণ একটি অর্জন।

০৬ মার্চ রবিবার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ।

২০১২ সালের এশিয়া কাপের ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে দুই রানে হারার দুঃখ ৪ বছরের মাথায় সেই পাকিস্তানকে বধ করেই অসাধারণ এক জয়ে আবার ফাইনালে উঠেছে দুরন্ত বলাদেশ। তাও আবার দুর্বোধ্য টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে, যে ফরম্যাটের ধরনটা এখনো বুঝে উঠতে পারেনি বলে অনেকবারই স্বীকার করেছেন ক্রিকেটার থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সবাই। তবুও রবিবার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে নামার আগে মাটিতেই পা রাখছেন মাশরাফি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটায় অসম্ভব চাপের মুখে সাকিবের আউটের পর মোহাম্মদ মিথুনের বদলে নিজেই নেমে যাওয়া সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, ওই মুহূর্তে আসলে চাপ নিয়ে ভাবারও সময় ছিল না। সাকিব ওই শটটা খুবই ভালো খেলে, ওই মুহূর্তে বাউন্ডারিরও প্রয়োজন ছিল। দলকে চাপমুক্ত করতেই ওই শটটা খেলেছিল সে, দুর্ভাগ্য শটটা বলের লাইন মিস করেছে।

ভারতের সাথে ম্যাচ নিয়ে প্রত্যাশা সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, আমরা প্রত্যাশার অপ্রয়োজনীয় চাপ নিতে চাচ্ছি না। পা মাটিতেই রাখছি। ভারত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অন্যতম শক্তিশালী দল। তবুও আমরা সেরাটা খেলতে পারলে ফাইনালের ফলটা পক্ষেই আসবে বলে বিশ্বাস করি।

সাম্প্রতিক সময়ে ভারতকে হারানোর স্মৃতি টাইগারদের অনুপ্রাণিত করে কিনা জানতে চাইলে তামিম বলেন, ‘ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ দুর্দান্ত, বোলাররাও বিশ্বমানের। তাদের বিপক্ষে ভালো খেলার স্মৃতি তো অবশ্যই মনে পড়বে। তবে একটা জিনিস বিশ্বাস করি, একটা দল যতই শক্তিশালী হোক না কেন, আমরা যদি সেরাটা খেলতে পারি, তাহলে যেকোনো দলকেই হারাতে পারবো।

এদিকে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ভারতকে প্রচন্ড চাপে ফেলে দেয়া বাংলাদেশ অকুণ্ঠ প্রশংসাই পাচ্ছে ভারতীয় অধিনায়ক এম এস ধোনির কাছ থেকে। ‘আগেই বলেছি, যে কোনো ভালো দল নিজের দেশের কন্ডিশনটা ভালোভাবে ব্যবহার করতে পারে। স্বাগতিকদের হারানো সব সময়ই বড় একটা চ্যালেঞ্জ। আর বাংলাদেশ গত কয়েক বছরে অনেক উন্নতি করেছে। তাদের শক্তি অনেক বেড়েছে। ভালো একটা ফাইনালই হবে।’

বাংলাদেশকে প্রাপ্য সম্মান দিলেও প্রছন্ন একটা হুমকিও দিয়ে রাখলেন ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করনে গত ক’মাস ধরেই অপ্রতিরোধ্য ভারতের অধিনায়ক। বাংলাদেশের সিমিং কন্ডিশন চ্যালেঞ্জ হবে কিনা জানতে চাইলে ধোনি বলেন, ‘আমরা এখানে চার থেকে পাঁচটা ম্যাচ খেলে ফেলেছি ইতিমধ্যে। উইকেট আর কন্ডিশনের সঙ্গেও অনেকটা অভ্যস্ত হয়ে গেছি। আর এ বছর টি-টোয়েন্টিতে আমাদের দলটা দেখিয়ে দিচ্ছে আমরা যে কোন কন্ডিশনেই খেলতে পারি। অস্ট্রেলিয়া,শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের পর এশিয়া কাপেও আমরা সেটা প্রমাণ করেছি। ৫০ ওভারের ম্যাচ ভিন্ন প্রসঙ্গ, কিন্তু টি-টোয়েন্টিতে আমরা যে কোন জায়গায় ভালো খেলার ক্ষমতা রাখি।

যে টি-টোয়েন্টি ছিল একসময় বাংলাদেশের দুঃখ, রাতারাতি সেই টি-টোয়েন্টিতেই বদলে যাওয়া বাংলাদেশ এখন প্রস্তুত তাদের ক্রিকেট ইতিহাসের নতুন এক অধ্যায়ের জন্য, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে এশিয়া কাপের নতুন চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতিহাস গড়বার জন্য।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে