আপডেট : ৪ মার্চ, ২০১৬ ২০:১৪

বিসিএলে ডাবল সেঞ্চুরি করলেন রকিবুল

স্পোর্টস ডেস্ক
বিসিএলে ডাবল সেঞ্চুরি করলেন রকিবুল

ব্যাটসম্যান রকিবুল হাসান কেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটটা দীর্ঘায়িত করলেন না, সেটা এখনও বোধগম্য নয় বাংলাদেশের অনেক ক্রিকেটপ্রেমীর। ঘরোয়া ক্রিকেট মানেই রকিবুল হাসানের ব্যাটে রানের ফুলঝুরি। বাংলাদেশের প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে একমাত্র ত্রিপল সেঞ্চুরিয়ান। চলমান বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) আবারও ডাবল সেঞ্চুরি এলো তার ব্যাট থেকে।

রকিবুল হাসানের অনবদ্য ২২৮ রানের জবাবে বিসিএলে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের হয়ে ইসলামি ব্যাংক ইস্ট জোনের বিপক্ষে দুর্দান্ত এই ডাবল সেঞ্চুরিটা তুলে নিয়েছেন তিনি। তবুও তার দল জিততে পারেনি। কারণ ইসলামি ব্যাংক ইস্টজোনের ব্যাটসম্যানদের অসাধারণ ব্যাটিংয়ের কারণে ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ড্র হয়েছে।

টস জিতে ওয়ালটন সেন্ট্রল জোন ব্যাট করতে নেমে রাকিবুল হাসানের ডাবল সেঞ্চুরিতে চড়ে ৮ উইকেট হারিয়ে ৫৮৮ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। ৩৩৮ বলে ১৯টি বাউন্ডারি এবং ২টি ছক্কার বিনিময়ে ২২৮ রান করে তাসামুল হকের বলে ইয়াসির আলির হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি। রকিবুল ছাড়াও সেঞ্চুরি করেন তানভির হায়দার। ৮১ রান করেন মার্শাল আইয়ুব।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে মমিনুল হকের ৮৯, অলক কাপালির ৭৩, ইয়াসির আলির ৫৯, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের অপরাজিত ৭৭ রানের ওপর ভর করে ইসলামি ব্যাংক ইস্টজোনও করে ৪৪২ রান। যদিও তারা অলআউট হয়ে যায়। ১৪৬ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সেঞ্চুরির দেখা পায় সেন্ট্রাল জোনের ওপেনার শামসুর রহমান শুভ। ১৪৮ বলে ১২৫ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। সেন্ট্রাল জোন ৪ উইকেটে ১৯৯ রান করার পর ম্যাচের নির্ধারিত চারদিন শেষ হয়ে যায়। ফলে ম্যাচ ড্র।

অপরদিকে নর্থজোন আর সাউথ জোনের ম্যাচটিও ড্র হয়েছে। ড্র ম্যাচে শাহরিয়ার নাফীস এবং অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার নাজমুল হোসেন শান্ত সেঞ্চুরির দেখা পান। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নর্থ জোন ২৯৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। মুক্তার আলি করেন সর্বোচ্চ ৬৪ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে সাউথ জোন ৩৪১ রানে অলআউট হয়ে যায়। ৯৬ রান করেন তুষার ইমরান। এনামুল হক বিজয় করেন ৭০, শাহরিয়ার নাফীস ৫২ এবং তাইবুর রহমান করেন ৩৮ রান।

দ্বিতীয় ইনিংসে নাজমুল হোসেন শান্তর সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ৭ উইকেটে ৩৯০ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে নর্থ জোন। শান্ত করেন ১২৬ রান। ৭৪ রান করেন জহিরুল ইসলাম। আরিফুল হক করেন ৭১ রান এবং ৬৫ রান করেন নাঈম ইসলাম।

জয়ের জন্য ৩৪৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শাহরিয়ার নাফিসের সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ২ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রান করে সাউথ জোন। ১০১ রানে অপরাজিত থাকেন শাহরিয়ার নাফিস। ৪৩ রান করেন এনামুল হক বিজয়, ২৯ রান করেন ফরহাদ রেজা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি ড্রতেই শেষ হলো।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

উপরে