আপডেট : ২ মার্চ, ২০১৬ ১১:৫৮

হাথুরুর চোখে অনেক নতুন পালক, আরেকটি ইতিহাস গড়তে চান

বিনোদন ডেস্ক
হাথুরুর চোখে অনেক নতুন পালক, আরেকটি ইতিহাস গড়তে চান

আজ কি আরেকটু লম্বা হবে বাংলাদেশের এশিয়া কাপ? নাকি এখানেই শেষ! দু-একটি দিন অপেক্ষা করে ফাইনালে খেলার স্বপ্ন অপূর্ণ রেখেই ধরবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বিমান?
কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে কিন্তু বড় আশাই দেখছেন। গত কিছুদিন বাংলাদেশ দল এমন অনেক কিছুই করেছে, যা আগে কখনো পারেনি। শ্রীলঙ্কাকে টি-টোয়েন্টিতে হারানো তারই একটা উদাহরণ। এ রকম তো আরও অনেক কিছুই করার আছে। সেগুলোও কেন হবে না এবারই? হাথুরুসিংহে আত্মবিশ্বাসী, ‘গত কিছুদিন আমরা এমন অনেক কিছুই করেছি, যা আগে কখনো করিনি। এবারও আমরা নিশ্চয়ই এমন কিছু অর্জন করতে যাচ্ছি, যা আগে করিনি। আগে কখনো ঘটেনি এ রকম কিছু করাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। সুতরাং আশা তো আছেই...।’
ভারত ম্যাচ ছাড়া বাকি দুই ম্যাচে জিতলেও এশিয়া কাপে বাংলাদেশের ব্যাটিং মন ভরাতে পারেনি। তবে সেটা মানেন না কোচ। নাম ধরে বললেন সাব্বির আর মাহমুদউল্লাহর কথা। সবাই ভালো খেলল কি না, সে আলোচনার চেয়ে দলের তিন-চারজন যে প্রতি ম্যাচে রান করছে, সেটিই বড় তাঁর কাছে। সাকিবের নিষ্প্রভতা নিয়ে একটু চিন্তা ছিল। গত ম্যাচের পর সেটাও আর নেই বলে মনে হচ্ছে হাথুরুসিংহের কথায়, ‘আমি মনে করি সাকিব খুবই ভালো করছে। গত ম্যাচে সাব্বিরের সঙ্গে ওর জুটিটাই ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। বোলিংয়েও দিয়েছে বুদ্ধিমত্তার পরিচয়। ফিল্ডিংয়ে নিয়েছে ম্যাথুসের দুর্দান্ত ক্যাচ।’ সাকিবের জ্বলে ওঠার পর কোচ এখন আশা নিয়ে তাকিয়ে মুশফিকুর রহিমের দিকেও।
এর আগে সাব্বির-সাকিবদের প্রশংসা ঝরেছে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কথায়ও। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চাপের মুখে খেলা সাব্বিরের ইনিংসটাকে তো টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেরই অন্যতম সেরা ইনিংসের মর্যাদা দিলেন তিনি! অন্যরা বড় ইনিংস খেলতে না পারলেও সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের সময়োপযোগী ব্যাটিং করার সামর্থ্য অধিনায়ককেও দেখাচ্ছে বড় কিছুর স্বপ্ন। আগের ম্যাচের মতো আজও একটা দল হয়ে খেলতে পারলে এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশের টিকে থাকা অসম্ভব মনে করেন না অধিনায়ক।
কোচের চোখে অনেক নতুন পালকই যোগ হচ্ছে বাংলাদেশ দলের সাফল্যের মুকুটে। অনেক নতুন অর্জন বাড়াচ্ছে আত্মবিশ্বাস। মাশরাফি সেই তালিকায় যোগ করলেন আরও কিছু, ‘জিতলে আত্মবিশ্বাস বাড়াই স্বাভাবিক। একটা দল যখন বাজে পরিস্থিতি থেকে সাফল্যের পথে যায়, তখন কিন্তু একটু একটু করেই উন্নতির দিকে তাকাতে হয়। শ্রীলঙ্কা ম্যাচের দিকে তাকান—অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস কিন্তু ওই পরিস্থিতি থেকে ম্যাচ বের করে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট কার্যকর। রেকর্ডও তাই বলে। কিন্তু ওই পরিস্থিতিতে আমরা মাথা ঠান্ডা রেখে খেলেছি বলেই জিতেছি।’
তবে এ রকম এক-দুটি জয়েই রাতারাতি টি-টোয়েন্টির বড় দল হয়ে যাবে না বাংলাদেশ। তার জন্য চাই ধারাবাহিক সাফল্য, ২০ ওভারের ক্রিকেটে নিয়মিত ভালো করার মন্ত্রটা ধরতে পারা। এশিয়া কাপ থেকে সেটিই মাশরাফিরা নিয়ে যেতে চান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

উপরে