আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:০৬

ধোনি-ভক্ত এবার পাক নয়, গলা ফাটাবেন ভারতের হয়ে

বিডিটাইমস ডেস্ক
ধোনি-ভক্ত এবার পাক নয়, গলা ফাটাবেন ভারতের হয়ে

ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচে তিনি খুব পরিচিত মুখ। তিনি যে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ভক্ত সেটাও নতুন কোনও তথ্য নয়। বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে বলেছিলেন, হৃদয়ের একদিকে পাকিস্তান। অন্যদিকে ভারত।

মহম্মদ বশিরের জীবন কাহিনিটাও যে সেরকমই। স্ত্রী ভারতীয়। তিনি পাকিস্তানি। বিশ্বকাপে এসেছিলেন বিশেষভাবে তৈরি টি-শার্ট পরে। যার বুকের ওপরে লেখা— জিস দেশ মে গঙ্গা বহতি হ্যায়...। অবশ্যই স্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে লেখা। 

বশিরের হৃদয়ের একদিকে এখন মনে হচ্ছে, ভারতীয় স্ত্রী। অন্যদিকে এক ভারত অধিনায়ক। মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। পাকিস্তান-প্রেম আর খুব একটা নেই। অ্যাডিলেডের পর এই প্রথম তিনি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে থাকছেন। এশিয়া কাপ দেখতে হাজির হয়ে গিয়েছেন বশির। এবং, নতুন হচ্ছে পুরোপুরি ভারতকেই সমর্থন করবেন বলে ঠিক করে নিয়েছেন।

আরও আকর্ষণীয় হতে যাচ্ছে, এবারের মহারণে তার পোশাক। পুরো গা ঢাকা জোব্বা মতো একটি পোশাক তৈরি করে এনেছেন। সেটি ভর্তি ধোনির ছবিতে। এমনকী, ধোনি আর সাক্ষীর ছবিও রয়েছে। তাতে লেখা, ‘লাভ ইউ ধোনি’। মঙ্গলবার মীরপুরে দাঁড়িয়ে বশির বলে দিলেন, ‘‘ঠিক করে নিয়েছি, ধোনিকেই শুধু সমর্থন করব।’’ কেন পাকিস্তান নয়? অনেকদিন হল পাকিস্তান ছেড়ে শিকাগোতে থাকেন বশির। বললেন, ‘‘ধোনি ভাল ক্রিকেটারই শুধু নয়, ভাল অধিনায়কই শুধু নয়, ভাল মানুষও। তাই প্রতিপক্ষ যে-ই থাকুক, সে সব দেখব না। ওকেই আমি সমর্থন করব।’’ 

মঙ্গলবার সকালেই হোটেলে গিয়ে ধোনির সঙ্গে দেখা করে এসেছেন বশির। আজ, বুধবার ভারতের প্রথম ম্যাচ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। মাঠে যাচ্ছেন বশির। টিকিট দিচ্ছেন কে? না, ধোনি। সকালেই কথা হয়ে গিয়েছে। বশির শুনেছেন, বুধবারের ম্যাচে ধোনির না খেলার সম্ভাবনা বেশি। টেস্ট থেকে অবসর নেওয়ার পরেই প্রিয় তারকার কথা ভেবে একটি বিশেষ টুপি তৈরি করেছিলেন বশির।

যদি ধোনি না খেলতে পারেন বুধবার, সেই টুপিটা পরে নেবেন। তাতে লেখা— ‘মিস ইউ ধোনি’। জানালেন, টেস্ট থেকে ধোনি অবসর নেওয়া দেখে তিনি রীতিমতো আতঙ্কে আছেন, হয়তো খুব শীঘ্রই ক্রিকেট থেকেই বিদায় নিয়ে নেবেন ধোনি। সাংবাদিক সম্মেলনে বারবার অবসরের প্রশ্নে বিব্রত হওয়া ধোনি শুনলে নিশ্চয়ই স্বস্তিবোধ করতেন যে, তাঁর পাকিস্তান ভক্ত বলছেন, ‘‘ধোনি খেলা ছেড়ে দিলে আর মাঠেই আসব না। একবার হার্ট অ্যাটাক হয়ে গিয়েছে। তারপরেও এসেছি শুধু ওর জন্যই। এই যে দেখুন, কতগুলো ওষুধ নিয়ে আসতে হয়েছে। স্ত্রী সব প্যাক করে দিয়েছে। বলেছে, ওষুধ না খেলে আর যেতেই দেবে না।’’

বশিরের ধোনি-প্রেমের কাহিনিটাও চমকপ্রদ। আগে কট্টর পাকিস্তান-ভক্ত ছিলেন। মাঠে এসে স্লোগান তুলতেন ‘জিতেগা ভাই জিতেগা পাকিস্তান জিতেগা’। সেই মনোভাবে নাটকীয় পরিবর্তন ঘটে ২০১১ বিশ্বকাপের সময়। মোহালিতে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখার আশায় ওয়াঘা সীমান্ত পেরিয়ে এসেছিলেন বশির। কিন্তু ম্যাচের টিকিট পাচ্ছিলেন না। তাঁর কথায়, পাকিস্তানের টিমবাস যখন ঢুকছিল, আফ্রিদিদের কাছেও অনুরোধ করেছিলেন ম্যাচের টিকিট দেওয়ার জন্য। কেউ দেননি। 

কে তাঁর ম্যাচ দেখার স্বপ্নপূরণ করলেন? না, সেই বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়ক। পুরনো স্মৃতি মনে করতে গিয়ে আবেগে ভাসলেন বশির। ‘‘হঠাৎ দেখলাম এক মহিলা নিরাপত্তা অফিসার এসে আমাকে ভিতরে নিয়ে গেলেন। টিকিট দিয়ে উনি বললেন, যান ভিতরে যান। এই টিকিটটা ধোনি পাঠিয়েছে আপনার জন্য।’’ ভারতীয় টিভি চ্যানেলে ততক্ষণে বশিরের আক্ষেপ দেখানো শুরু হয়ে গিয়েছে যে, ম্যাচ দেখতে এসেও টিকিট না পেয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে পাক ক্রিকেটভক্তকে। 

বশির বলছিলেন, ‘‘সেই দিন থেকে আমার ভিতরটাই পাল্টে যায়। আগে মাঠে গেলেই অন্য অনেকের মতো আমিও চেঁচাতাম, ভারতকে হারাতেই হবে। অন্যদের মতোই জেতার ব্যাপারে আক্রমণাত্মক ছিলাম। ধোনি শেখাল, হার-জিত খুব ছোট একটা ব্যাপার। জীবনের মাঠটা অনেক অনেক বড়। আমার ভিতরকার মানুষটাকেই পাল্টে দিল ধোনি।’’
বুধবার ধোনি যদি না খেলেন? নিশ্চিত থাকা যায়, শের-ই-বাংলায় থমথমে মুখে দেখা যাবে ‘চাচা’ বশির-কে। মাথায় সেই টুপি— মিস ইউ ধোনি!  
বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

 

উপরে