আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১১:১৬

শেষ বলে ভাগ্য বদল প্রোটিয়াদের

স্পোর্টস ডেস্ক
শেষ বলে ভাগ্য বদল প্রোটিয়াদের

পেণ্ডুলামের মতো ঝুলতে থাকা ম্যাচের ভাগ্য গড়ায় শেষ বলে। আর তাতে বিজয়ীর হাসি নিয়ে দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০তে লিড নিল এবিডি ভিলিয়ার্সের দল। কেপ টাউনে দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ডের মধ্যকার প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে তিন উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে প্রোটিয়ারা।
 
আগে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রোটিয়াদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ইংলিশরা ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রান করে। জবাবে, ৭ উইকেট হারিয়ে ইনিংসের শেষ ওভারে নাটকের জন্ম দিয়ে জয় তুলে নেয় প্রোটিয়ারা।
 
ইংলিশদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩২ রান করে অপরাজিত থাকেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জোস বাটলার। ওপেনার জ্যাসন রয় ১৫ আর অ্যান্ড্রু হেলস ২৭ রান করেন। জো রুটের ব্যাট থেকে আসে ৮ রান। দলপতি ইয়ন মরগান ১০ রান করে বিদায় নেন।
 
এছাড়া, বেন স্টোকস ১১, ক্রিস জর্ডান ১৫ রান করেন।
 
প্রোটিয়াদের হয়ে ‍৪ ওভারে ২১ রান খরচায় ৪টি উইকেট দখল করেন স্পিনার ইমরান তাহির। দুটি উইকেট নেন কাইল অ্যাবোট। আর একটি করে উইকেট পান কেগিসো রাবাদা ও উইসি।
 
১৩৫ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার হাশিম আমলা ২১ বলে ২২ রান করে সাজঘরে ফেরেন। আরেক ওপেনার এবিডি ভিলিয়ার্স ৭ রান করেন। তিন নম্বরে নেমে ফাফ ডু প্লেসিস ৩০ বলে ২৫ রান করে বিদায় নেন।
 
চার নম্বরে ব্যাট হাতে নেমে জেপি ডুমিনি ২১ বলে ২৩ রান করে দলকে জয়ের পথেই নিতে থাকেন। রিলে রুশোর ব্যাট থেকে আসে আরও ১৮ রান। শেষ দুই ওভারে প্রোটিয়াদের জয়ের জন্য দরকার ছিল ২১ রান। ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই দ. আফ্রিকার ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হয়ে বিদায় নেন ১৩ রান করা ডেভিড মিলার।
 
পেণ্ডুলামের মতো ঝুলতে থাকা ম্যাচে সে ওভারেই ক্রিস জর্ডান ফিরিয়ে দেন ডেভিড উইসিকে (২)। ১৯তম ওভারে মাত্র ৬ রান তুলতে পারে প্রোটিয়ারা। শেষ ওভারে তাদের জয়ের জন্য দরকার হয় ১৫ রান।
 
শেষ ওভারে রিসি টপলির প্রথম বলে সিঙ্গেল নেন কাইল অ্যাবোট। স্ট্রাইক পেয়ে ক্রিস মরিস দ্বিতীয় বলে চার আর তৃতীয় বলে ছক্কা হাঁকান। চতুর্থ বলে কোনো রান পাননি মরিস। পঞ্চম বলটি লংঅফে ঠেলে দিয়েই দুটি রান বের করেন মরিস। শেষ বলে প্রয়োজন হয় দুই রানের। সেটি পূরণে সফল হন মরিস।
 
প্রোটিয়াদের ৩ উইকেটের জয় পাইয়ে দিতে মরিস ৭ বলে ১৭ রান করে অপরাজিত থাকেন।
 
ইংলিশদের হয়ে ক্রিস জর্ডান তিনটি আর মঈন আলি দুটি উইকেট লাভ করেন। একটি করে উইকেট পান আদিল রশিদ ও বেন স্টোকস।

উপরে