আপডেট : ১৯ জানুয়ারী, ২০১৬ ২১:৪১

আশরাফুলকে দেশদ্রোহী বললেন মাশরাফি!

স্পোর্টস ডেস্ক
আশরাফুলকে দেশদ্রোহী বললেন মাশরাফি!

দু’জন জাতীয় দলে খেলেছেন এক সাথে।হাতে হাত রেখে দেশের হয়ে লড়ে গেছেন আপন মনে।তারা একে অপরের বুন্ধুও বটে।বলছি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মোহাম্মাদ আশরাফুল ও বর্তমান ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কথা।কিন্তু সেই বন্ধু আশরাফুলকে দেশদ্রোহী বললেন মাশরাফি !

মাশরাফির ঝলমলে জীবনে স্মরণীয় একটা দিন হয়ে থাকবে নতুন বছরের ১৮ জানুয়ারি। সতীর্থ ও কোচের উপস্থিতিতে একটি হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হলো 'মাশরাফি' নামের বইয়ের মোড়ক। বইটি লিখেছেন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার ক্রীড়া সাংবাদিক দেবব্রত মুখোপাধ্যায়। মাত্র ৪৬৯ পৃষ্ঠার দুই মলাটে মাশরাফি বিন মুর্তজার জীবনের সবকিছু আপনি জেনে যাবেন-সেটা প্রায় অসম্ভব। তবে এই প্রথম প্রকাশিত আত্মজীবনীমূলক বইয়ে মাশরাফি যা বলে গেলেন সেটা নিশ্চিতভাবেই সামনের দিনে অনেক ‘ঘটনার’ জন্ম দেবে!

মাশরাফি নামের প্রকাশিত হওয়া এই বইতে সাক্ষাৎকার অংশে একটি প্রশ্নোত্তরে ফিক্সিং ও ফিক্সারদের ওপর মনের ক্ষোভ প্রকাশ করেন মাশরাফি।

ফিক্সিংয়ের দায়ে নিষিদ্ধ হওয়া বাংলাদেশের ক্রিকেটার, মাশরাফির সাবেক সতীর্থ আশরাফুলকে নিয়ে করা একটি প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি তার মনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

প্রশ্নের জবাবে ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে যাওয়া বিষয়টিকে কোনভাবে মানতে পারেন না বলে জানান মাশরাফি। সাক্ষাৎকারে প্রশ্নটি ছিল আশরাফুল কি দেশদ্রোহী? প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন? তা বলা যেতে পারে। ঠিক দেশের সঙ্গে প্রতারণা না করা হলেও মানুষের সঙ্গে প্রতারণা তো। কোটি কোটি মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। সে অর্থে একটু বড় করে আপনি দেশদ্রোহী ভাবতেও পারেন।”

মাশরাফি আরও জানান, তবে এগুলো অনেক বেশি ভেবে নেওয়া ব্যাপার। আসলে দেশদ্রোহ কোনটা? আপনি রাষ্ট্রের একটি গোপন তথ্য পাচার করে দিলেন, রাষ্ট্রের অর্থ নিয়ে ছিনিমিনি খেললেন, রাষ্ট্রকে সংকটে ফেলে দিলেন। এসব হলো দেশদ্রোহ। এটা ছেলেখেলা নয়। এখন দেখার বিষয় মোহাম্মদ আশরাফুল ভক্তরা মাশরাফির এই উক্তিকে কিভাবে নেবেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে