আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৬:১৯

মার্কা বদলে ভাগ্য খুলবে মান্নার?

অনলাইন ডেস্ক
মার্কা বদলে ভাগ্য খুলবে মান্নার?

মার্কা বদলে ভাগ্য খুলে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে নাগরিক ঐক্য আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা মাহমুদুর রহমান মান্নার। বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে এবার তিনি ধানের শীষ মার্কায় সংসদ নির্বাচন করবেন। এর আগে মান্না এই আসনে নির্বাচন করেছেন। তবে তখন নৌকা মার্কার কারণে মান্না নির্বাচিত হতে পারেননি বলে মন্তব্য করেছে তার সমর্থকরা। এবার মার্কা বদলের কারণেই নাকি ভাগ্য খুলবে মান্নার।

বগুড়া-২ আসনে মার্কা বদল করে মান্নার এভাবে নির্বাচনে অংশ নেয়াকে কেন্দ্র করে এলাকায় চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। হাট-বাজার, চায়ের দোকান, মুদি দোকান, বাসস্ট্যান্ড এমনকি মাঠে কাজ করা কৃষকও কাজের ফাঁকে আলোচনা করছে মান্নাকে নিয়ে। বিভিন্ন বন্দরের চায়ের দোকানগুলোতে সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা। আর এই আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু হচ্ছে মাহমুদুর রহমান মান্নার মার্কা বদল করার বিষয়টি।

জানা গেছে, শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়নের বিহার ফকিরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন মাহমুদুর রহমান মান্না। তবে তার শৈশবকাল কেটেছে নিজ এলাকার বাইরে। ছাত্র জীবনে এলাকায় যাতায়াতও কম ছিল। ১৯৯১ সালে অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে প্রথম আলোচনায় আসেন মান্না। তার নিজের গড়া রাজনৈতিক দল জনতা মুক্তি পার্টি থেকে তিনি প্রথম বগুড়া-২ আসনে কাস্তে মার্কায় সংসদ নির্বাচন করেন। এরপর জনতা মুক্তি পার্টি বিলুপ্ত করে মাহমুদুর রহমান মান্না যোগ দেন আওয়ামী লীগে। ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালের নির্বাচনে মাহমুদুর রহমান মান্না নৌকা মার্কা নিয়ে বগুড়া-২ আসনে সংসদ নির্বাচন করেন।

দীর্ঘ ১৭ বছর পর মান্না আবারো একই আসনে নির্বাচন করছেন। তবে এবার মার্কা বদল করে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন তিনি। এবার এই আসনে মান্নার মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে লাঙ্গল মার্কার সঙ্গে। মহাজোট থেকে এবার আসনটি জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

বগুড়া জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরিফুল ইসলাম জিন্না এবার এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী। ২০১৪ সালে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় বিনা ভোটে সাংসদ নির্বাচিত হন তিনি।

এদিকে মাহমুদুর রহমান মান্না মার্কা বদল করায় এবার শরিফুল ইসলাম জিন্নার জয়লাভ করার সম্ভাবনা দেখছে না তার নিজ ইউনিয়ন রায়নগর গ্রামের ভোটাররা।

এই গ্রামের ভোটার তৌফিক, হুমায়ুন কবির, জামাল উদ্দিন ছাড়াও অন্যান্য ভোটাররা জানান, জিন্না এবার তার নিজের ভোট সেন্টারে পাশ করতে পারবেন না।

কারণ হিসেবে ভোটাররা জানান, আওয়ামী লীগের অনেক ভোটার এবার ভোট দিতে যাবে না। নির্বাচনী এলাকায় নৌকা মার্কা না থাকার পাশাপাশি সাংসদ জিন্না গত ৫ বছরে হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পার্টিকে পুনরুদ্ধার করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করেছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-২ আসনে প্রার্থী রয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না, মহাজোট থেকে জাতীয় পার্টির বর্তমান সাংসদ শরিফুল ইসলাম জিন্না, সাবেক সাংসদ জামায়াত নেতা মাও. শাহাদুজ্জামান, ইসলামী আন্দোলনের জামাল উদ্দিন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে