আপডেট : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:৪৯

নীলফামারীতে ‘ফ্রি আই স্ক্রীনিং ক্যাম্প’

অনলাইন ডেস্ক
নীলফামারীতে ‘ফ্রি আই স্ক্রীনিং ক্যাম্প’

নীলফামারীর জলঢাকায় যৌথভাবে ‘ফ্রি আই স্ক্রীনিং ক্যাম্প’ পরিচালনা করেছে রাইটস এন্ড সাইট ফর চিলড্রেন (আরএসসি), ডিসট্রেসড চিলড্রেন এ- ইনফ্যান্টস ইন্টারন্যাশনাল (ডিসিআই), ও ফারাজ হোসেন ফাউন্ডেশন।

আজ (১৩ নভেম্বর) জলঢাকার কৈমারী ইউনিয়নে কৈমারী স্কুল এন্ড কলেজে এই বিনামূল্যে আই স্ক্রীনিং ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়।

উক্ত ক্যাম্প পরিচালনার উদ্দেশ্য ছিল, যে সকল সুবিধাবঞ্চিত মানুষ অর্থের অভাবে চোখের ছানি অপারেশন, ঔষধ বা চশমার খরচ বহন করতে অক্ষম তাদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা, যাতে কোন মানুষই অর্থাভাবে অন্ধ হয়ে না যায়।

আজকের ক্যাম্পে মোট ৫৩০ জন অসহায় মানুষ চক্ষু সেবা গ্রহণ করেন। তাদের মধ্যে ৯৫ জন ছানি রোগী, ১৬৭ জন চশমার রোগী সনাক্ত করা হয় এবং ১১৩ জন রোগীকে ক্যাম্প হতে চশমা প্রদান করা হয়। পরবর্তী দিনে তাদের ছানি অপারেশন ও চশমা প্রদান করা হবে। এছাড়া ৩৮৯ জন রোগীকে ক্যাম্প থেকে বিনামূল্যে ঔষধ প্রদান করা হয়।

প্রয়াত ফারাজ আয়াজ হোসেন এর স্বরণে এই ‘ফ্রি আই স্ক্রীনিং ক্যাম্প’ আয়োজন করা হয়। ফারাজ মানবতার জন্য যে অসম্ভব সাহস ও সর্বোচ্চ আত্মহুতি দিয়েছেন তা আজ বিশ্ববাসীর জন্য এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ২০১৬ সালের পহেলা জুলাই হোলিআর্টিজান বেকারীতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী আক্রমণের সময় বাংলাদেশি মুসলমান হিসেবে ফারাজকে চলে যাওয়ার জন্যে বল্লেও তিনি তার বন্ধুদের জন্য তা প্রত্যাখ্যান করেন এবং চরম আত্মাহুতি প্রদানের মাধ্যমে সাহসীকতা, মানবতা ও বন্ধুত্বের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। আরএসসি ও ডিসিআই ফারাজের এই মূল্যবোধ সারা বিশ্বের যুব সম্প্রদায় এর মধ্যে বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রতিফলিত করতে চায়।

ডিসিআই এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ডা. এহসান হক এক শুভেচ্ছা বার্তায় ক্যাম্পের সফলতা কামনা করে বলেন, ফারাজের স্বরণে চক্ষু ক্যাম্পের উদ্দেশ্য হলো- হতভাগ্য-সুবিধাবঞ্চিত মানুষের চোখে দৃষ্টি ফেরানো এবং তাদের মাঝে নতুন ভাবে আশা জাগানো। আমি নিজে একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষ হিসাবে বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বুঝতে পারি যে, অন্ধত্ব দূর করা কতটা প্রয়োজন এবং দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ও অন্যান্য প্রতিবন্ধীদের সহযোগিতা করা কতটা জরুরী। এটা আমাদের সবোর্চ্চ প্রতিজ্ঞা, যে সকল দরিদ্র মানুষ আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে ডাক্তারের নিকট গিয়ে চিকিৎসা নিতে অক্ষম তাদের সেবা প্রদান করা আমাদের সর্বোচ্চ প্রতিজ্ঞা। আমরা অন্ধত্ব দূর করে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষকে সেবা প্রদানের জন্য বদ্ধ পরিকর।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনজনাব মোঃ সুজাউদ্দৌলা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জলঢাকা, নীলফামারি। তিনি ফিতা কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষনা করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জনাব এ জেড সিদ্দিকী, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, জলঢাকা; জনাব রেজাউল হক বাবু, ইউপি চেয়্যারম্যান, কৈমারী ইউনিয়ন; জনাব চঞ্চল কুমার ভৌমিক, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, জলঢাকা; জনাব জামাল নাসের রোমেল, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, আরএসসি; জনাব হুমায়ন কবীর, প্রোগ্রাম ডেভলপমেন্ট অফিসার আরএসসি, জনাব সাঈদ রহমান, এরিয়া ম্যানেজার, নীলফামারি, আরএসসি; জনাব মোঃ মহাসিন, হেলথ এ্যাসিস্ট্যান্ট আরএসসি সহ আরও অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

ফারাজ হোসেন ফাউন্ডেশনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন জনাব আহম্মেদ ওয়াসেল রাফিন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে