আপডেট : ১২ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৯:০০

ব্যাংকে নিয়োগ: গণ্ডগোলের পর দুই কেন্দ্রের পরীক্ষা ২০ জানুয়ারি

অনলাইন ডেস্ক
ব্যাংকে নিয়োগ: গণ্ডগোলের পর দুই কেন্দ্রের পরীক্ষা ২০ জানুয়ারি

আজ বাংলাদেশ ব্যাংকের অধিনে সমন্বিত ৮ ব্যাংকের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মিরপুর ১ নম্বের অবস্থিত হযরত শাহ আলী মহিলা কলেজে গোলোযোগ বেঁধে যায়। সূত্র জানায়, বাংলা কলেজ কেন্দ্রে ৪ হাজার এবং মিরপুর শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ১৬০০ চাকরিপ্রত্যাশীর পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। 

জানা গেছে, এই ৫ হাজার ৬০০ শিক্ষার্থীকে বসানো পর্যাপ্ত ব্যবস্থা ছিল না। সেখানে প্রতি বেঞ্চ ৫-৬ করে পরীক্ষার্থী বসানো হয়। অনেকের বসারই আসন ছিল না। যারা কোনমতে বসেছেন তারা এক কম জায়গায় পরীক্ষা দিতে পারছিলেন না। অনেকে পরীক্ষা দিতে লাইব্রেরি চলে যান। সেখানেও আসন মেলেনি। এই অবস্থায় পরীক্ষা দেওয়া যায় না, ক্রমেই ক্ষোভ দানা বাঁধতে থাকে শিক্ষার্থীদের মনে। প্রতিবাদী হয়ে ওঠেন তারা। ভাঙচুর শুরু করেন কলেজে। এক পর্যায়ে অবস্থা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।

পরে ক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীরা বিকালে মিরপুর শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রের বাইরে বিক্ষোভ ও ভাংচুর চালিয়েছে। পরীক্ষা না দিয়ে বেরিয়ে গেছেন বাংলা কলেজের পরীক্ষার্থীরাও। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে জরুরি বৈঠকে বসেছে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটি। কমিটির সদস্য সচিব বাংলাদেশ ব্যাংকের মহা ব্যবস্থাপক মো. মোশাররফ হোসেন খান বলেন, ঝামেলা কিছুটা হয়েছে। যারা পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি তাদের বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে জরুরি সভা চলছে।

এদিকে, গোলোযোগের কথা শুনেছি। আমরা প্রস্তুত আছি বলে জানান শাহ আলী থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন। বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী মুঠোফোনে জানান, একেক বেঞ্চে ৮-১০ জনও বসানো হয়েছে। এ অবস্থায় পরীক্ষা দেওয়ার কোনো পরিবেশ ছিল না। অনেককেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। শুধু শাহ আলী কলেজ নয়, বাংলা কলেজের একাই পরিস্থিতি ছিল। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধরা প্রতিবাদ শুরু করে। কলেজে ভাংচুরও চালানো হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে