আপডেট : ১৩ এপ্রিল, ২০১৬ ১৩:০১

শাহরাস্তিতে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে তিন অফিস সহকারীর কারাদণ্ড

বিডিটাইমস ডেস্ক
শাহরাস্তিতে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে তিন অফিস সহকারীর কারাদণ্ড

পরীক্ষা শুরুর পূর্বে প্রশ্ন ফাঁস করে উত্তর লিখে নকল সরবরাহের প্রস্তুতিকালে হাতেনাতে ধরে এক জনকে ছয় মাসের কারাণ্ড ও চার জনকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যামাণ আদালত।

ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় শাহরাস্তির সূচিপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে। এইচএসসি পরীক্ষার মঙ্গলবার ছিলো আইসিটি বিষয়ের পরীক্ষা।

উক্ত পরীক্ষা শুরুর ১ ঘণ্টা পূর্বে অর্থাৎ সকাল ৯টায় সূচিপাড়া ডিগ্রি কলেজের অফিস সহকারী শামসুল আলম, সহকারী অধ্যাপক আঃ মজিদ ও আতিকুল ইসলাম মিলে প্রশ্ন ফাঁস করে একটি কক্ষে বসে উত্তরপত্র লিখে নিজ কলেজের শিক্ষার্থীদের সরবরাহের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল মাসুদ ঐ কক্ষে গিয়ে প্রশ্নসহ তাদের হাতেনাতে ধরে পেলেন।

পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জানা যায়, কলেজের অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া ও উপাধ্যক্ষ হুমায়ূন কবির পাটওয়ারীর নির্দেশেই তারা এ কাজটি করছিলেন। অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে নিজেদের সংশ্লিষ্টতার কথাও লিখিতভাবে স্বীকার করেন।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তিনি ঐ কলেজের অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষকে দশ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শিক্ষা বোর্ডে পত্র প্রেরণ, কলেজের অফিস সহকারীকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ও দুই সহকারী অধ্যাপককে ৮ ও ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। ইউএনও সামিউল মাসুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ ঘটনায় পুরো শাহরাস্তি জুড়ে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জেডএম

উপরে