আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০১৬ ১৮:১৬

ভিডিওম্যান হিসেবে প্রবেশ তারপর করে ডাকাতি

বিডিটাইমস ডেস্ক
ভিডিওম্যান হিসেবে প্রবেশ তারপর করে ডাকাতি

তারা বয়সে অনেক ছোট। কিন্তু ছিনতাই বা ডাকাতিতে বড় ডাকাত বা ছিনতাইকারীকেও হার মানাবে তাদের ডাকাতির ধরণ।তাদের সংগ্রহে আছে বিভিন্ন প্রকার ধারালো ছোরা, ক্ষুর, দেশীয় অস্ত্র সহ সকল সরঞ্জাম।

ভিডিওম্যান হিসেবে লোকজনের বাড়িতে প্রবেশ করে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে এরপর নির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে সেই বাড়ি গুলোতে প্রবেশ করে সর্বস্ব নিয়ে যায় চুরি করে।

শুধু তাই নয়, অপরাধ সংগঠিত করার সময় তারা কাউকে মেরে ফেলতে ও পিছপা হয়না। এমন এক দুর্ধর্ষ ডাকাত চক্রকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হল মোহাম্মদ রেজাউল (২১) পিতা- আবুল হাকিম গ্রাম বুড়িফইর, চকরিয়া, কক্সবাজার। মোহাম্মদ জোনাইদ (২০) পিতা- আবুল হাসেম, গ্রাম- বারদোনা ভালার পাড়া সাতকানিয়া চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার ওসি তদন্ত কেপায়েত উল্লাহ জানান ২৬শে মার্চ রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে লোহাগাড়া থানার এস আই শেখ জাবেদের নেতৃত্বে এস আই আতিক সহ ফোর্স নিয়ে বটতলীর আবাসিক হোটেল এম.কে টাওয়ারের ৫ম তলায় ৫০৪ নং কক্ষে অভিযান চালিয়ে একটি দেশীয় তৈরী এলজি ও দুটি কার্তুজ সহ তাদের আটক করে।

এস আই শেখ জাবেদ বলেন, সম্প্রতি আটককৃতরা সহ তাদের সিন্ডিকেট এর সদস্যরা মিলে একটি সিএনজিতে ছিনতাইয়ের সময় চালককে ক্ষুর দিয়ে টান মেরে আহত করে মোবাইল, টাকা-পয়সা সহ সর্বস্ব লুটে নেয় উক্ত ছিনতাই এর ঘটনা সহ একটি চুরির ঘটনার তদন্তে মাঠে নামলে বের হয়ে আসে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ শাহজাহান পিপিএম জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে ১৮৭৮ সনের অস্ত্র আইনের ১৯-অ ধারা মোতাবেক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে