আপডেট : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২০:১৬

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে ওষুধের দোকান বন্ধ

বিডিটাইমস ডেস্ক
ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে ওষুধের দোকান বন্ধ

শেরপুর শহরের রঘুনাথ বাজার থানা মোড়ের ওষুধের দোকানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে দোকান বন্ধ রেখেছেন ওই এলাকার ওষুধ ব্যবসায়ীরা। এতে বিপাকে পড়েছেন ওই এলাকার রোগী ও তার স্বজনেরা।

সোমবার দুপুরে এ অভিযান পরিচালনার পরে দোকান বন্ধ করেন ব্যবসায়ীরা।

জানা গেছে, সেবা মেডিক্যাল হল নামে একটি ওষুধের দোকানে অভিযান চালিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখা ও বিক্রির দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

কিন্তু জরিমানার টাকা না দেওয়ায় ওই দোকানের পরিচালক আবুল কালামকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে এ অভিযান চালানো হয়।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে শেরপুর কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির সদস্যরা শহরের সব ওষুধের দোকান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয়। সেই সঙ্গে এর প্রতিবাদে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে।

পরে বিক্ষোভকারীরা মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে জরিমানার অর্থদণ্ডের পরিমাণ কমিয়ে অবিলম্বে ধৃত ওষুধ ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দেওয়ার দাবি জানায়।

অন্যথায় কোন ওষুধের দোকান খোলা হবে না বলে হুমকি দেওয়া হয়। এ সময় জেলা প্রশাসক ডা. এ এম পারভেজ রহিম বিক্ষোভকারীদের বিষয়টি নিয়ে ওষুধ ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় করা হবে বলে জানান। জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ওষুধ ব্যবসায়ীদের সাথে উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে এ রিপোর্ট লেখ পর্যন্ত বৈঠক চলছিল।

এদিকে, ওষুধের দোকান বন্ধ থাকার কারণে রোগীর জন্য অতি প্রয়োজনীয় জরুরী ওষুধ না পেয়ে মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।

এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেরপুর সদর ইউএনও মোহাম্মদ হাবীবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ভোক্তা আইন ২০০৯ এর ধারা মোতাবেক সেবা মেডিকেল হলে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখা ও বিক্রির দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ঘোষণা করা হয়। জরিমানার অর্থ পরিশোধ না করায় ওই ওষুধ ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে