আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৮:৪৭
মসজিদের মাইকে ছাত্রীদের স্কুলে যেতে নিষেধাজ্ঞা

ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব, গড়ালো ছাত্রীর শ্লীলতাহানিতে

বিডিটাইমস ডেস্ক
ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব, গড়ালো ছাত্রীর শ্লীলতাহানিতে

মুন্সিগঞ্জে দুদল গ্রামবাসির মধ্যকার স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ঠেকেছে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায়। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মসজিদের মাইকে ছাত্রীদের ওই স্কুলে না যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

সোমবার শ্রীনগর উপজেলার রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাহিদুর রহমান জানান, সোমবার কয়েকজন ছাত্রী  ছুটি হওয়ার আগেই বিবন্দী-তন্তর রাস্তার বাগবাড়ি এলাকার রাস্তা দিয়ে স্কুল থেকে বাড়ীতে যাচ্ছিল। এসময় স্থানীয় কয়েকজন ছেলে তাদের জিজ্ঞেস করে ছুটি না হতেই তারা কেন স্কুল থেকে চলে যাচ্ছে?

পরে ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে অভিভাবকদের শ্লীলতাহানীর অভিযোগ জানায়। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিভাবকরা বাগবাড়ি গ্রামে গিয়ে এলাকার মুরুব্বিদের কাছে বখাটেদের বিরুদ্ধে বিচার দাবি করে। ওই দিন সন্ধ্যায় সালিশ মীমাংসার একপর্যায়ে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয় ও সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে যুবলীগ নেতা মিন্টু, রতন মিয়া, শরীফ, বাবুসহ অন্তত আটজন আহত হয়।

ওসি সাহিদুর রহমান আরও জানান, এর পরপরই রাত ১০টার দিকে ওই এলাকার পাচল দিয়া, বনগাঁও, বিবন্দী ও টুনিয়া মান্দ্র গ্রামের মসজিদের মাইক থেকে ঘোষণা দিয়ে ওইসব এলাকার ছাত্রীদেরকে রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ে যেতে নিষেধ করা হয়।

গ্রামগুলোর একাধিক অভিভাবক মোবাইল ফোনে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. জাকির হোসেনকে তাদের উদ্বেগের বিষয়টি জানান।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ওই ছাত্রীর ভাই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য তপন মুখার্জীর কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

(ওসি) সাহিদুর রহমান বলেন, দুদল গ্রামবাসীর মধ্যে ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এই ঘটনায় ওই দ্বন্দ্বের রেশই কাজ করেছে। ইউএনও সহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।অভিযোগ পেলে দোষিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

 

উপরে