আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২৩:১০

পরকীয়ার জেরে মা-ছেলের আত্নহত্যা চেষ্টা, প্রাণ গেলো ছেলের

বিডিটাইমস ডেস্ক
পরকীয়ার জেরে মা-ছেলের আত্নহত্যা চেষ্টা, প্রাণ গেলো ছেলের

স্বামীর পরকীয়াকে সহ্য করতে না পেরে পাঁচ বছরের ছেলে তামিমকে নিয়ে বিষ খেয়েছিলেন পিরোজপুরের গৃহবধূ জায়েদা (২০)। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি বেঁচে গেলেও বাঁচানো যায়নি তামিমকে।

পিরোজপুর শহরের সিআইপাড়া মোল্লা বাড়িতে বুধবার রাতের এ ঘটনায় জেলা জুড়ে চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।

জায়েদার মা সাকিরুন বেগম জানান, এক বছর আগে জায়েদার স্বামী ইজিবাইক চালক কামাল মোল্লার (২৬) সঙ্গে স্থানীয় একটি মেয়ের ‘পরকীয়া’র সম্পর্ক গড়ে উঠে। এ নিয়ে বিরোধের জেরে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদও হয়েছিল। পরে শিশুপুত্র তামিমের কথা ভেবে তারা আবারও বিয়ে করেন।

সাকিরুনের অভিযোগ, দ্বিতীয় বিয়ের পরও জনৈক মেয়েটির সঙ্গে ‘সম্পর্ক বজায়’ রেখেছিল কামাল। এ নিয়ে মাঝেমধ্যেই জায়েদাকে মারধর করত।

সাকিরুন জানান, এ নিয়ে বৎসার জেরে বুধবার রাতে ঘর থেকে বের হয়ে পাশের এক বাগানে গিয়ে তামিমকে নিয়ে ইঁদুরমারার বিষপান করেন জায়েদা। কামাল বিষপানে ‘আত্মহত্যা প্রচেষ্টা’র ব্যাপারটি টের পেয়ে স্ত্রী ও শিশুপুত্রকে রাতেই পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃস্পতিবার ভোর পাঁচটার দিকে তামিম মারা যায়। পুলিশ এ ঘটনা জানতে পেরে হাসপাতালে জায়েদাকে হেফাজতে রেখেছে।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম মাসুদউজ্জামান জানান, জায়েদা হাসপাতালে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। এ ঘটনায় জায়েদার বিরুদ্ধে ছেলে হত্যা ও কামালের বিরুদ্ধে পরকীয়ার দায়সহ বিভিন্ন অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে