আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:২৮

তালাক দেওয়ায় মেয়ের বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলেন স্বামী

বিডিটাইমস ডেস্ক
তালাক দেওয়ায় মেয়ের বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলেন স্বামী

ধারালো অস্ত্র দিয়ে শ্বশুরকে কুপিয়ে পালিয়ে গেলো মেয়ের জামাতা। বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার বুধবার রাতে উপজলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ জামিরতলা মাদ্রাসার সামনে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত হামেদ দরানী (৫৫) স্থানীয় জিএইচ নুরুল ইসলাম দাখিল মাদ্রাসায় দপ্তরি ছিলেন। তিনি নিশানবাড়িয়ার গুয়াতলা গ্রামের প্রয়াত হায়াত আলী দরানির ছেলে।

মোরেলগঞ্জ থানার উপ-পরিদশক তারক বিশ্বাস জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয় ফুলহাতা বাজার থেকে হামেদ তার ছেলে লিটনকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

ওই সময় মেয়ের প্রাক্তন স্বামী আবু জাফরসহ ২/৩ জন মিলে হামেদ দারানীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

জানা যায়, হামেদ দরানীর মেয়ে শারমিন আক্তারের সঙ্গে দশ বছর আগে আবু জাফরের বিয়ে হয়। বিয়ের পর কয়েকবছর স্বামীর সঙ্গে মেয়ের সংসার ভালো কাটলেও সম্প্রতি কলহ শুরু হয়। এতে করে সাত মাস আগে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদের জের ধরেই জাফর এই হামলা করেছে বলে নিহতের পরিবার দাবি করেছে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

 

 

 

উপরে