আপডেট : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:৩০

ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের মারধরের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের মারধরের অভিযোগ

যশোর সরকারি এমএম কলেজের এক শিক্ষককে লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে পরীক্ষা ও ক্লাস বর্জন করায় শিক্ষার্থীদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

সোমবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের মারধর করেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, রোববার সকালে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সেমিনার কক্ষে বিভাগের প্রথমবর্ষের ছাত্র আল নোমান  সহযোগী অধ্যাপক  ড. মোহাম্মদ ফিরোজুল ইসলামকে লাঞ্ছিত করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

এ ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে অধ্যক্ষের কক্ষের সামনে অবস্থান নেন। কিছুক্ষণ পর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এসে শিক্ষার্থীদের মারধর করেন। এতে তিন শিক্ষার্থী আহত হন।

শিক্ষার্থীদের মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী বলেন, শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কার্যালয়ে জড়ো হয়ে বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করছিলেন। তখন সাধারণ শিক্ষার্থীরা গিয়ে তাদের সরিয়ে দিয়েছেন।

ভুক্তভোগী শিক্ষক ড. মোহাম্মদ ফিরোজুল ইসলাম জানান,  তাকে লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে কলেজে কি হয়েছে তা ‍তিনি জানেন না।

এ বিষয়ে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মিজানুর রহমান বলেন, শিক্ষক লাঞ্ছিতের ঘটনায় একাডেমিক কাউন্সিলের সভা হয়েছে। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মঙ্গলবার ওই শিক্ষার্থীর ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আমার কাছে স্মারকলিপি দিতে এসেছিল। তবে তাদের মারধর করার খবর আমার জানা নেই।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে