আপডেট : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:০১

বর্ষার কষ্ট ম্লান করলো শীতের ইলিশ

বরিশাল অফিস
বর্ষার কষ্ট ম্লান করলো শীতের ইলিশ

বর্ষা ইলিশের মৌসুম। এক সময় বরিশালে বর্ষা এলেই প্রচুর পরিমাণে ইলিশ ধরা পরতো জেলেদের জালে। কিন্তু গত দু-বছর জেলেদের জালে ইলিশের দেখা মিলেনি বললেই চলে। এক কথায় ইলিশের মৌসুমে জেলেদের হতাশ হতে হয়েছে। তবে বর্ষায় হতাশ করলেও শীত বরিশালের জেলেদের হতাশ করছে না। তবে জালে বড় ইলিশ না পড়লেও মাঝারি আকারের ইলিশ ধরা পড়ছে ব্যাপকহারে। তাই বর্ষার মতো এখনো জমজমাট বরিশালের মাছ ঘাটগুলো।

শুক্রবার বরিশালের পোর্টরোড মাছঘাটে শতাধিক শ্রমিককে জাল নিয়ে ব্যস্ত দেখা যায়। সকলেই মাছ ধরে ঘাটে ফিরেছিলো। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার ভাষানচর এলাকার জেলে আপন সরকার বলেন, এবার শীতকালেও ইলিশ ধরা পরছে। আগে বর্ষায় পাওয়াও দায় ছিলো। মাছ এর দেখাই মিলতো না। কিন্তু শীতে এখন মাছ পেয়ে ভালোভাবেই সবকিছু কাটছে। সব জেলেই অনেক খুশি। তবে এ মাছের সাইজ তেমন একটা বড় নয়।

হিজলা উপজেলার জেলে আবুল কাশেম মিয়া বলেন, তার জাল তোলা ছিলো। জালে ভালো মাছ বাজতো না তাই তা ফেলে রাখা হয়েছিলো। কিন্তু হঠাৎ করেই ডিসেম্বরের শেষের দিকে জালে মাছ বাজতে শুরু করে। তবে বড় ইলিশ ধরা পড়ছে না তেমন একটা। কিন্তু মাঝারি ধরনের ইলিশ জালে আটকা পড়ছে অনেক। দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে।

বরিশাল জেলা মৎস অফিস সূত্রে জানা যায়, জানুয়ারি মাসে বরিশালে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ইলিশ মাছ ধরা পড়েছে। যা গত তিন মাসের তুলনায় অনেকগুণ বেশী। আর শীতকালে এতবেশী পরিমাণ ইলিশ কখনই ধরা পরেনি। তবে ইলিশের সাইজ তেমন একটা বড় নয়। এখন বেশী ধরা পরছে ৪শ থেকে সাওে ৫শ গ্রাম সাইজের ইলিশ মাছ। তবে জেলা মৎস আড়ৎদার সমিতির দেয়া তথ্যানুযায়ী জানুয়ারি মাসে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন ইলিশ মাছ জেলেদের জালে ধরা পরেছে। তবে সব মাছের সাইজ ৫শ গ্রামের মধ্যে। দাম মোটামুটি ভালো।

মৎস আড়ৎদার বাচ্চু সিকদার বলেন, জানুয়ারি মাসে জেলেদের জালে অনেক মাছ ধরা পড়েছে। তবে মাছের সাইজ ৫শ গ্রাম থেকে ৬শ গ্রামের মধ্যে। প্রতি মন ইলিশের বিক্রি হচ্ছে ১৮ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা। জমজমাট রয়েছে ইলিশ মাছের বাজার।

জেলা মৎস কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, শীত হলেও ভালো ইলিশ মাছ ধরা পরছে জেলেদের জালে। প্রচুর পরিমাণ ইলিশ পাচ্ছে জেলেরা। তবে সাইজ ৫শ গ্রামের মধ্যে। আর এর মন বিক্রি হচ্ছে ১৮ হাজার টাকা করে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে