আপডেট : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২০:৪৩

আড়াইহাজারে গার্মেন্টসকর্মীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আটক ৫

বিডিটাইমস ডেস্ক
আড়াইহাজারে গার্মেন্টসকর্মীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আটক ৫

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় এক গার্মেন্টসকর্মীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার ওই গার্মেন্টসকর্মী মঙ্গলবার ওই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং পাঁচজনকে আটক করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ৩১ জানুয়ারি, রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার দুপ্তারা এলাকার কাজরী টাওয়ারে অবস্থিত ‘এরনিক কালেকশন’ নামে একটি গার্মেন্টসে কাজ শেষে মায়ের বান্ধবীর ছেলে সোহানের সঙ্গে পাঁচগাও করপাড়া এলাকায় বাড়ির উদ্দেশে ফিরছিল ওই গার্মেন্টসকর্মী। সত্যবান্দি নয়াপাড়া এলাকায় স্থানীয় কয়েক যুবক তাদের দু’জনকে আটক করে। পরে হাসিনা বেগম নামে এক মহিলার টিনশেড দালানের একটি কক্ষে নিয়ে সোহানকে পিটিয়ে আহত করে ছেড়ে দেওয়া হয়। ৩-৪ যুবক পরে ওই গার্মেন্টসকর্মীকে জোর করে ধর্ষণ করে। পরে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয়নি বলে মুখ দিয়ে স্বীকারোক্তি নেয় এবং তা মোবাইলে রেকর্ড করে রাখে। ধর্ষিতাকে পরে রাস্তায় এনে ছেড়ে দেওয়া হয়।

খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে ধর্ষিতার মা ও দুপ্তারা ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামপুলিশ শিপ্রা রানী দাস উপজেলার কালিবাড়ী এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে বাসায় নিয়ে আসে।

ওই গার্মেন্টসকর্মী তাৎক্ষণিক ধর্ষণের কথা পরিবারকে না জানালেও রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় সোমবার বিকেলে পরিবারকে বিষয়টি জানায়। মঙ্গলবার তাকে আড়াইাহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে প্রেরণ করে।

ধর্ষিতা মঙ্গলবার বিকেলে আড়াইহাজার থানায় এসে অভিযোগ করলে পুলিশ বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরে ওই বাড়ির মামুন (২২), রাজিব প্রধান (২০), মোমেলা বেগম (২৫), বিউটি (২৪) ও হেনাকে (৩২) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন ধর্ষণের অভিযোগ পেয়েছেন বলে দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান। ওই ঘটনায় পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে