আপডেট : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৭:৫৩

বরিশালে ছাত্রলীগের প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

বরিশাল প্রতিনিধি
বরিশালে ছাত্রলীগের প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

বরিশাল সরকারি বিএম কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য ফয়সাল আহমেদ মুন্নার ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে করা বিক্ষোভ মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায় ক্যাম্পাসের প্রশাসনিক ভবন থেকে মিছিলটি বের হয়ে কলেজ সামনের সড়কে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল শেষে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। মিছিলকারীরা ক্যাম্পাসের ভেতর ঢুকে  প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে ছাত্রসংসদ ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিতে গেলে পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ করে।

বিএম কলেজের একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, পাওনা টাকা না দেয়ায় মঙ্গলবার মধ্যরাতে কলেজ সংলগ্ন নগরীর বৈদ্যপাড়ার মুখে কুপিয়ে জখম করা হয় বিএম কলেজ ছাত্র কর্ম পরিষদের জিএস নাহিদ সেরনিয়াবাতুর অনুসারী কর্ম পরিষদের ক্রীড়া সম্পাদক ফয়সাল আহম্মেদ মুন্নাকে।

বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার ওসি শাখাওয়াত হোসেন জানান, ক্যাম্পাসে বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ বেলা সাড়ে ১১ টায় ঘটনাস্থলে যায়। প্রথমে পুলিশের উপর চড়াও হয় বিক্ষোভকারীরা। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

বিএম কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক স.ম ইমানুল হাকিম বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে ক্যাম্পাসের বাইরে এবং রাতের আধারে। পুলিশকে বলে দেয়া হয়েছে অপরাধীদের আটক করার জন্য। আর আন্দোলনকারীদেরও বলে দেয়া হয়েছে এর সাথে কলেজের কোন শিকষার্থী সম্পৃক্ত থাকলে অবশ্যই ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রাত ১২ টায় বিএম কলেজ অস্থায়ী ছাত্র কর্মপরিষদের ক্রীড়া সম্পাদক ও ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল আহম্মেদ মুন্নাকে প্রতিপক্ষরা কুপিয়ে মারাত্নকভাবে জক্ষম করে। ঐ ঘটনার পরপরই রাতে মুন্নার সমর্থকরা বিএম কলেজের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বিএম কলেজের আরেক ছাত্রলীগ নেতা মাটার্স ২য় বর্ষের ছাত্র সুনীল বাড়ৈকে আটক করে পুলিশ ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

 

উপরে