আপডেট : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:৫৩

আবদুল্লাহ হত্যায় দ্রুত বিচারের আশ্বাস খাদ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক
আবদুল্লাহ হত্যায় দ্রুত বিচারের আশ্বাস খাদ্যমন্ত্রীর
ফাইল ছবি

ঢাকার কেরানীগঞ্জে শিশু আবদুল্লাহ হত্যা মামলা তিন থেকে চার মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির আশ্বাস দিয়েছেন স্থানীয় সাংসদ ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

বুধবার সকালে রোহিতপুর ইউনিয়নের মুগারচর গ্রামে আবদুল্লাহর বাড়িতে গিয়ে তিনি শিশুটির বাবা-মা ও স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় এ আশ্বাস দেন।

আবদুল্লাহর স্বজনদের খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এ মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হবে। তিন থেকে চার মাসের মধ্যে বিচারকাজ সম্পন্ন হবে।আমি বাদীর ও এলাকাবসীর পক্ষ হয়ে ব্যক্তিগতভাবেও বিষয়টি দেখব, যাতে বাদীরা কোনোরকম হয়রানির শিকার না হয় এবং আসামিরা যাতে সর্বোচ্চ সাজা পায়।

আবদুল্লাহকে অপহরণের ঘটনায় করা সাধারণ ডায়েরিকে (জিডি) মামলা হিসেবে গণ্য করা হয়েছে ও চারজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

সকাল থেকে ঘটনার মূল হোতা হিসেবে সন্দেহভাজন মোতাহারকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল করে এলাকাবাসী। আবদুল্লাহর মায়ের বড় মামা মোতাহার হোসেন। অর্থাৎ, সম্পর্কে তিনি শিশুটির নানা।

গত শুক্রবার থেকে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র মো. আবদুল্লাহ (১১) নিখোঁজ ছিল। তাকে খুঁজতে থানা-পুলিশ হয়েছে। চলেছে বিস্তর খোঁজখবর। একপর্যায়ে মুঠোফোনে তাকে অপহরণের দাবি করে দুই দফায় দুই লাখ টাকা নেয় অপহরণকারীরা। এরপরও শিশুটিকে ফেরত দেয়নি তারা। মঙ্গলবার আবদুল্লাহদের বাড়ির মাত্র ১০০ গজ পশ্চিমে মোতাহার হোসেনের বাড়ির একটি কক্ষ থেকে প্লাস্টিকের ড্রামে ভরা আবদুল্লাহর গলিত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার পর থেকে মোতাহার পলাতক।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

 

 

উপরে